নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও উপজেলার বারদী ইউনিয়নে অবস্থিত মেঘনা নদীর বুকে জেগে উঠা ত্রিভুজ আকৃতির চরের নাম মায়াদ্বীপ (Maya Dwip)। সবুজে ঘেরা মায়াদ্বীপ আপনার মনকে এক অপার্থিব প্রশান্তিতে ভরিয়ে দেবে। খোলা প্রান্তর, নদীর ঢেউয়ের সমান্তরালে বয়ে চলা বাতাস আর মাতাল করা একটি দুপুর সব মিলিয়ে এই চর যেন সত্যিই মায়ায় ঘেরা জাদুপুরী।

ঢাকার কাছে হওয়ায় প্রিয়জনদের নিয়ে একটা দুপুর কাটাতে প্রকৃতিপ্রেমী দর্শনার্থীদের কাছে এক অন্যোন্য নাম মায়াদ্বীপ। তবে মায়াদ্বীপ চর ভ্রমণে এলে কোন অবস্থাতেই সন্ধ্যার পর সেখানে অবস্থান করবেন না। চর ঘুরে দেখে অবশ্যই সন্ধার পূর্বে বৈদ্যের বাজার ফিরে আসুন।

মায়াদ্বীপ কিভাবে যাবেন

ঢাকার গুলিস্তান থেকে দোয়েল, স্বদেশ কিংবা বোরাক-এর এসি, নন-এসি বাসে সোনারগাঁওয়ের মোগড়াপাড়া চৌরাস্তায় চলে আসুন। মোগড়াপাড়া চৌরাস্তা থেকে ব্যাটারী চালিত অটোরিকশা কিংবা সিএনজি চেপে বৈদ্যের বাজার নৌকা ঘাটে আসতে হবে। বৈদ্যের বাজার ঘাট হতে সারাদিনের জন্য নৌকা ভাড়া করতে ১০০০ থেকে ১৫০০ টাকা খরচ হবে।

কোথায় খাবেন

খাবার খাওয়ার জন্য বৈদ্যের বাজারে সাধারণ মানের হোটেল রয়েছে। আর চাইলে মায়াদ্বীপে খাওয়ার জন্য বৈদ্যের বাজার হতে প্রয়োজনীয় খাবার ও পানি কিনে নিয়ে যেতে পারেন।

টিপস

মায়াদ্বীপ ভ্রমণে গেলে কয়েকজন মিলে গ্রুপ করে যাওয়া ভাল এবং নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে সন্ধ্যার আগেই ফিরে আসা উচিত।

ফিচার ইমেজ: জুনায়েদ আজিম চৌধুরী

ম্যাপে মায়াদ্বীপ

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।