সৌন্দর্যপ্রেমী মানুষ মাত্রই ভ্রমণ করতে ভালোবাসেন। আর যদি বিদেশ ভ্রমণের সুযোগ আসে তবে তো কথাই নেই। নিজ দেশের বাইরে ভ্রমণ করতে চাইলে প্রথমেই একটি বৈধ পাসপোর্ট থাকা বাধ্যতামূলক। তারপর সেই পাসপোর্টে সংশ্লিষ্ট দেশের ভিসার প্রয়োজন হয়। বিদেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে ভিসার পাবার জন্য বেশ বেগ পেতে হয়। অর্থাৎ যে দেশে ভ্রমণে যাবেন সে দেশের নির্ধারিত শর্তগুলো ঠিকঠাক মত পালন করলেই কেবল মিলবে কাঙ্ক্ষিত দেশের ভিসা। কিন্তু আপনি যদি বাংলাদেশের বৈধ পাসপোর্টের মালিক হয়ে থাকেন তবে বাংলাদেশী পাসপোর্টের ক্ষমতাবলে ভিসা ছাড়া সহজে বিশ্বের অনেক দেশ ভ্রমণ করতে পারবেন।

কোন দেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে নিজ দেশ ত্যাগের পূর্বেই অগ্রিম ভিসা নিতে হয় আবার কোন কোন দেশে সরাসরি উপস্থিত হয়ে অন-অ্যারাইভাল (on arrival visa) নেয়া যায় আবার কিছু দেশ আছে যেখানে ভিসারই প্রয়োজন নেই। ভিসা ছাড়া (visa free) ভ্রমণ বলতে ভিসা ফ্রি বা অন অ্যারাইভাল ভিসাকে বুঝানো হয়। অর্থাৎ আপনি কোন দেশে ভ্রমণ করতে চাইলে অগ্রিম সেই দেশের ভিসা সংগ্রহের প্রয়োজন নেই। সরাসরি সেই দেশের পৌঁছে বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন থেকে সহজেই ভিসা নিতে পারবেন অথবা ভিসা ছাড়াই একটি নির্দিষ্ট সময় ভ্রমণের সুবিধা পাবেন। বেশিরভাগ দেশেই অন এরাইভাল ভিসা পেতে দেশ অনুযায়ী বিভিন্ন ফি দিতে হয়।

ভিসা ফ্রী দেশ সমূহ

নিচের এই দেশ গুলোতে একদম ভিসা ছাড়া ভ্রমণ করতে পারবেন। সাথে করে আপনার পাসপোর্ট নিয়ে গেলেই হবে, কোন রকম ভিসা লাগবেনা। তবে দেশ অনুযায়ী একেক দেশে অবস্থান কতদিন করতে পারবেন তার সময়সীমা আছে। এবং কিছু দেশের ক্ষেত্রে অনুমতিপত্র নিতে হয়।

নামভিসার ধরণঅবস্থান করা যাবে
বাহমাস (Bahamas)ভিসা ফ্রি৯০ দিন
বারবাডোস (Barbados)ভিসা ফ্রি১৮০ দিন
ভুটান (Bhutan)ভিসা ফ্রি১৪ দিন
ডমিনিকা (Dominica)ভিসা ফ্রি১৮০ দিন
ফিজি (Fiji)ভিসা ফ্রি১২০ দিন
গাম্বিয়া (Gambia)ভিসা ফ্রি৯০ দিন
গ্রানাডা (Grenada)ভিসা ফ্রি৯০ দিন
হাইতি (Haiti)ভিসা ফ্রি৯০ দিন
ইন্দোনেশিয়া (Indonesia)ভিসা ফ্রি৩০ দিন
জ্যামাইকা (Jamaica)ভিসা ফ্রি
লেসেথো (Lesotho)ভিসা ফ্রি
মাইক্রোনেসিয়া (Micronesia)ভিসা ফ্রি৩০ দিন
সেইন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস (Saint Kitts and Nevis)ভিসা ফ্রি৯০ দিন
সেইন্ট ভিনসেন্ট ( St. Vincent)ভিসা ফ্রি৩০ দিন
ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো (Trinidad and Tobago)ভিসা ফ্রি
ভানুয়াতু (Vanuatu)ভিসা ফ্রি৩০ দিন

অন অ্যারাইভাল ভিসা

অন এরাইভাল ভিসা অর্থা সেই দেশে গিয়ে প্রবেশের মূহুর্তে আপনাকে ভিসা নিতে হবে। এই ক্ষেত্রে আগে পাসপোর্টে ভিসা নেবার যে ঝামেলা তার প্রয়োজন হয়না। একেক দেশে একেক রকম ফী দিতে হয় অন এরাইভাল ভিসা নিতে। এবং দেশ অনুযায়ী কতদিন অবস্থান করবেন তা নির্ভর করে। অন এরাইভাল ভিসা পাসপোর্ট ভিসার চেয়ে সহজ প্রক্রিয়ার হয়ে থাকে। তবে এই ভিসা পেতে দেশ অনুযায়ী বিভিন্ন ডকুমেন্ট দেখাতে হয়। যেমন কিছু দেশের ক্ষেত্রে আপনার রিটার্ণ বিমান টিকেট, হোটেল বুকিং এর ডকুমেন্ট এইসব দেখানোর প্রয়োজন হয়।

দেশভিসার ধরণভিসার মেয়াদ
বলিভিয়া (Bolivia)ভিসা অন অ্যারাইভাল / ই-ভিসা৯০ দিন
কম্বোডিয়া (Cambodia)ভিসা অন অ্যারাইভাল / ই-ভিসা৩০ দিন
কেপ ভার্দে ( Cape Verde )ভিসা অন অ্যারাইভাল
কমোরোস (Comoros)ভিসা অন অ্যারাইভাল৪৫ দিন
গিনি বিসাউ (Guinea-Bissau)ভিসা অন অ্যারাইভাল / ই-ভিসা৯০ দিন
মাদাগাস্কার (Madagascar )ভিসা অন অ্যারাইভাল / ই-ভিসা৯০ দিন
মালদ্বীপ (Maldives)ভিসা অন অ্যারাইভাল৩০ দিন
মাওরিতানিয়া (Mauritania)ভিসা অন অ্যারাইভাল
মোজাম্বিক (Mozambique)ভিসা অন অ্যারাইভাল৩০ দিন
নেপাল (Nepal)ভিসা অন অ্যারাইভাল৯০ দিন
রুয়ান্ডা ( Rwanda )ভিসা অন অ্যারাইভাল / ই-ভিসা৩০ দিন
সামুয়া (Samoa)ভিসা অন অ্যারাইভাল৬০ দিন
সেনেগাল (Senegal)ভিসা অন অ্যারাইভাল৩০ দিন
সোমালিয়া (Somalia)ভিসা অন অ্যারাইভাল৩০ দিন
তিমরলেস্টে ( Timor-Leste )ভিসা অন অ্যারাইভাল৩০ দিন
টোগো (Togo)ভিসা অন অ্যারাইভাল৭ দিন
তুভালু ( Tuvalu )ভিসা অন অ্যারাইভাল৩০ দিন
উগান্ডা ( Uganda )ভিসা অন অ্যারাইভাল / ই-ভিসা

ই-ভিসা করে যাওয়া যাবে যে সব দেশ

এছাড়া পাসপোর্টে পেপার বেইজড ভিসা ছাড়াও ই-ভিসা (E-Visa) করে আপনি নিচের দেশ গুলোতে ভ্রমণ করতে পারবেন। সংশ্লিষ্ট দেশের ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্টে অনলাইনে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আবেদন করে এই ভিসা পাওয়া যাবে।

দেশভিসার ধরণমেয়াদ
অস্ট্রেলিয়া (Australia)ই-ভিসা
কলম্বিয়া (Colombia)ই-ভিসা
ইথোপিয়া (Ethiopia)ই-ভিসা
কাজাখস্তান (Kazakhstan)ই-ভিসা
মালয়েশিয়া (Malaysia)ই-ভিসা৩০ দিন
মায়ানমার (Myanmar)ই-ভিসা২৮ দিন
পাকিস্তান (Pakistan)ই-ভিসা
কাতার (Qatar)ই-ভিসা৩০ দিন
সিঙ্গাপুর (Singapore)ই-ভিসা
তাজিকিস্তান (Tajikistan)ই-ভিসা
তাঞ্জানিয়া (Tanzania)ই-ভিসা
তুরস্ক (Turkey)ই-ভিসা৯০ দিন
আরব আমিরাত (United Arab Emirates)ই-ভিসা
উজবেকিস্তান (Uzbekistan)ই-ভিসা৩০ দিন
জাম্বিয়া (Zambia)ই-ভিসা
জিম্বাবুয়ে (Zimbabwe)ই-ভিসা

ভিসা ছাড়া যে সকল দেশ ভ্রমণ করতে পারবেন তার আপডেটেড তালিকা জানতে এই লিংকে ক্লিক করে বিস্তারিত দেখুন। অনেক দেশের ভিসা নীতি প্রায়ই পরিবর্তন করে থাকে। তাই কোন দেশ ভ্রমণের আগে সংশ্লিষ্ট দেশের ভিসা বিষয়ক বিস্তারিত তথ্য জেনে নিবেন।

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।