বাংলাদেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিনের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অবলোকন করতে প্রতি বছর হাজার হাজার পর্যটক বঙ্গোপসাগরে পাড়ি জমান। টেকনাফ থেকে ট্রলার এবং জাহাজে চড়ে সেন্টামার্টিন যাওয়া যায়। তবে পর্যটকদের জন্য জাহাজে সেন্টমার্টিন গমণ সবচেয়ে নিরাপদ ও আরামদায়ক।

এই বছর (২০১৯-২০২০সাল) প্রতিদিন কেয়ারী সিন্দাবাদ, কেয়ারি বে ক্রুজ এন্ড ডাইন, এম ভি বে ক্রুজ-১, এম ভি ফারহান, আটলান্টিক ক্রজ ইত্যাদি জাহাজ টেকনাফ সেন্টমার্টিন রুটে চলাচল করছে। প্রতিদিন সকাল ৯.০০ হতে ৯.৩০ মিনিটের মধ্যে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় এবং বিকেল ৩ঃ০০ হতে ৩ঃ৩০ মিনিটে ফিরে আসে।

১. কেয়ারি বে ক্রুজ এন্ড ডাইন

কেয়ারি বে ক্রুজ এন্ড ডাইন সেন্টমার্টিনগামী পর্যটকদের কাছে একটি পরিচিত নাম। শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত এ জাহাজের অভ্যন্তরে ডাইনিংয়ের ব্যবস্থা আছে।

টিকেট মূল্য

মেইন ডেক (এক্সক্লুসিভ লাউঞ্জ) ১,০০০ টাকা
আপার ডেক (কোরাল লাউঞ্জ) ১,০০০ টাকা
আপার ডেক (পার্ল লাউঞ্জ) ১,৪০০ টাকা

২. কেয়ারি সিন্দাবাদ

ননএসি কেয়ারি সিন্দাবাদ টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটের সবচেয়ে পুরনো ও জনপ্রিয় একটি জাহাজ। এ জাহাজের টিকেট মূল্য বাকি সকল জাহাজের তুলনায় কম।

টিকেট মূল্য

মেইন ডেক ৬৫০ টাকা
ওপেন ডেক ৮০০ টাকা
ব্রিজ ডেক ৯০০ টাকা

যোগাযোগ

কর্পোরেট অফিসঃ
KEAEI Plaza (5th Floor),
83 Shat Mashjid Road, 8/a Dhanmondi, Dhaka-1209
Ph : 01817-148735; 01814-658270; 01841-094179; 01712114009

কক্সবাজার অফিসঃ
Urmee Guest House (Ground Floor),
Kalatoli Road,Cox’s Bazar
Ph : 01817-210421,01817-210422,01817-210423, 01817-210424

টেকনাফ অফিসঃ
Damdamia, KEARI Ghat Taknaf, Cox’s Bazar
Ph : 01819-379083,01817-210428, 01811-4184790

অনলাইনে কেয়ারি জাহাজের টিকেট বুকিং: www.kearitourismbd.com

৩. এম ভি বে ক্রুজ-১

টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটের সবচেয়ে দ্রুতগতির জাহাজের নাম এম ভি বে ক্রুজ-১। সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ জাহাজের টিকেটের মূল্য তুলনামূলক বেশি।

টিকেট মূল্য

রজনীগন্ধা১,৩০০ টাকা
হাসনাহেনা১,৪০০ টাকা
কৃষ্ণচূড়া১,৬০০ টাকা

যোগাযোগ

HOT LINE
Ph: +88 01971 591127
DHAKA OFFICE
Ph: +880 1827167817 (Mr.Bashir)
Ph: +880 1776284601 (Mr.Bashir)
COX’S BAZAAR OFFICE
Ph: +880 1779 181872 (Mr.Bahadur)
Ph: +880 1944 797528 (Mr.Sayed Hussain)
Ph: +880 1820 248205 (Mr.Sohel)

৪. দ্যা আটলান্টিক ক্রুজ

সেন্টমার্টিন রুটে সবচেয়ে জনপ্রিয় জাহাজের নাম আটলান্টক ক্রুজ। যার পূর্ব নাম ছিল এল.সি.টি কুতুবদিয়া। এসি/ননএসি সুবিধাযুক্ত এই জাহাজটি এই রুটের বৃহৎ শিপ হিসাবে খ্যাত।

টিকেট মূল্য

ইকোনমি ডেক৭৫০ টাকা
ওপেন ডেক৮৫০ টাকা
রয়েল লাউঞ্জ১০৫০ টাকা
লাক্সারি লাউঞ্চ১৩৫০ টাকা

যোগাযোগ

Chowdhury Group of Industries (pvt.) Ltd.
55/B Noakhali tower, level-14,
Purana Palton, Dhaka
Ph: 01714-634762

৫. এম ভি ফারহান

জলপথে চলাচলকারীদের কাছে এম ভি ফারহান একটি পরিচিত নাম। নন-এসি এ জাহাজটি বেশ দ্রুততার সাথে সেন্টমার্টিন গমন করে।

টিকেট মূল্য

মেইন ডেক ৬৫০ টাকা
ওপেন ডেক ৮৫০ টাকা
ব্রিজ ডেক ৯০০ টাকা

ট্রলারে যাওয়ার উপায়

টেকনাফ নামারবাজার ব্রিজ বা জেটি ঘাট থেকে ট্রলার, স্পিডবোট ও মালবাহী ট্রলার ছাড়ে। সিজনের সময় জাহাজ ঘাটের পাশ থেকে ও ট্রলার ছাড়ে। সাধারণত ট্রলার ও মালবাহী বোট ১৫০-৩৫০ টাকা নেয়। এটা সিজন ও যাত্রীভেদে কম বেশি হয়ে থাকে। সময় লাগে প্রায় ৩ ঘন্টা। তবে নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করলে ট্রলারে যাওয়া উচিত নয়। যদি শিপে যাবার উপায় থাকে তাহলে শীপে যাওয়া আসা করাটাই ভালো।

কিভাবে টিকেট করবেন

কেয়ারি ছাড়া অন্য জাহাজ গুলোর বর্তমানে অনলাইনে অগ্রিম টিকেট কাটার সুযোগ নেই। তবে সরাসরি তাদের অফিসে গিয়ে অগ্রিম টিকেট নিতে পারবেন। এছাড়া বিভিন্ন এজেন্টদের কাছ থেকে উপরোক্ত শীপ গুলোর অগ্রিম টিকেট নিতে পারবেন।

টেকনাফে প্রতিটি জাহাজের ঘাটে সংশ্লিষ্ট জাহাজের টিকেট কাটার ব্যবস্থা আছে। তাই টেকনাফে গিয়ে জাহাজ গুলো ঘাট থেকেও টিকেট কাটতে পারবেন। তবে পিক সিজনে ছুটির দিন গুলোতে পর্যটকের চাপ বেশি থাকে, সেই ক্ষেত্রে ভাল হবে আগেই টিকেট কাটার ব্যবস্থা করে ফেলা।

কিছু প্রশ্ন ও উত্তর

প্রশ্নঃ টেকনাফে জাহাজ কখন চলে?
উত্তরঃ সাধারণত নভেম্বর থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত জাহাজ চলাচল করে। আবহাওয়ার উপর নির্ভর করে সময়ের কম বেশি হতে পারে।

প্রশ্ন: টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে জাহাজ কখন ছাড়ে?
উত্তর: সকাল ৯ টা ৩০ মিনিট।

প্রশ্ন: টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিনগামী জাহাজের সর্বনিম্ন ভাড়া কত?
উত্তর: ৬৫০ টাকা।

প্রশ্ন: সেন্টমার্টিন থেকে ফিরে আসার জন্য কি আলাদা টিকেট কাটতে হয়?
উত্তর: না, ফিরে আসার জন্য আলাদা টিকেট কাটার প্রয়োজন নেই।

প্রশ্ন: জাহাজের টিকেট না পেলে কি করণীয়?
উত্তরঃ প্রতিটি জাহাজেই সিট ছাড়াও টিকেট বিক্রি করে থাকে। স্ট্যান্ডিং টিকেট কেটে যাওয়া আসা করা যায়। যদি সিট না পান দাড়িয়েও একটু কষ্ট করে যাওয়া আসা সম্ভব। চারপাশ দেখতে দেখতে সময় কেটে যাবে।

প্রশ্নঃ জাহাজ মিস হয়ে কি করবো?
উত্তরঃ মনে রাখা ভাল জাহাজ গুলোর নির্দিষ্ট সময়েই ছেড়ে যায়। যদি কোন কারণে জাহাজ মিস হয়ে যায় তাহলে যাবার একমাত্র উপায় ট্রলার বা স্পিড বোটে (তবে এই পন্থা নিরাপদ নয়)। আর নয়তো পরদিনের জাহাজে যেতে হবে।

প্রশ্ন: সেন্টমার্টিন দিনে গিয়ে দিনে ফিরে আসার জাহাজের টিকেট কেটে পরদিন ফিরতে পারবো?
উত্তর: পারবেন, তবে এমনটা না করাই ভাল। অযাচিত ঝামেলা এড়াতে টিকেট কাটার সময় কতদিন সেন্টমার্টিনে থাকবেন সেটা বলে নেয়াই ভাল।

প্রশ্ন: দিনে গিয়ে দিনে ফিরে আসা কিংবা এক/দুইদিন সেন্টমার্টিন থাকার জন্য টিকেটের মূল্য কত?
উত্তর: সবক্ষেত্রে জাহাজের টিকেটের মূল্য একই।

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।