কমনওয়েলথ সমাধিক্ষেত্র বা ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রি (Moynamoti War Cemetery) তে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ৭৩৭ জন সৈন্য চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন। যার মধ্যে যুদ্ধে নিহত সৈন্য ছাড়াও ২৪ জন জাপানি যুদ্ধবন্দি এবং ১ জন বেসামরিক ব্যক্তি রয়েছে। কুমিল্লা থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্টের টিপরা বাজার ও ময়নামতি সাহেব বাজারের মধ্যস্থলে প্রায় ৪.৫ একর পাহাড়ি ভূমির উপর অবস্থিত ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রি বাংলাদেশের ২য় কমনওয়েলথ সমাধিক্ষেত্র। স্থানীয় মানুষের কাছে ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রি ‘ইংরেজ কবরস্থান’ হিসেবে পরিচিত হলেও এখানে হিন্দু, বৌদ্ধ, মুসলিম, খ্রিস্টান এবং ইহুদির কবর রয়েছে। ২য় বিশ্বযুদ্ধে নিহত এবং যুদ্ধাহত হয়ে মারা যাওয়া সৈনিকদের ব্রিগেডিয়ার পদমর্যাদায় ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রিতে সমাহিত করা হয়েছে। চট্টগ্রাম শহরের বাদশা মিয়া চৌধুরী রোডে ৭৫৫ সৈনিকের এমন আরেকটি কমনওয়েলথ সমাধিক্ষেত্র রয়েছে।

পরিদর্শনের সময়

ঈদের ২ দিন ব্যতীত সারাবছর সকাল ৭ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রি সকলের জন্য উম্মুক্ত থাকে। তবে প্রতিদিন দুপুর ১২ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত সাময়িক বিরতিতে সমাধিস্থল বন্ধ থাকে।

কীভাবে যাবেন

দেশের যেকোন জায়গা থেকে কুমিল্লা এসে সিএনজি অথবা বাসে করে ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রিতে যাওয়া যায়।

ঢাকা থেকে বাসে কুমিল্লা

ঢাকা থেকে সড়ক পথে কুমিল্লা যেতে আড়াই থেকে ৩ ঘন্টার মত সময় লাগে। ঢাকার সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল এবং কমলাপুর থেকে উপকূল (01981-002932, 01981-002942), তিশা (01731-217322), স্টার লাইন, বিআরটিসি (01770-493775), রয়েল, এশিয়া লাইন পরিবহনে বাসে কুমিল্লা আসতে জনপ্রতি ২০০ থেকে ৩০০ টাকা ভাড়া লাগে।

ঢাকা থেকে ট্রেনে করে সহজে কুমিল্লা আসতে পারবেন। চট্টগ্রামগামী সুবর্ণা ও সোনার বাংলা ছাড়া প্রায় সকল ট্রেন কুমিল্লা রেলওতে স্টেশনে যাত্রা বিরতি দেয়। ঢাকা থেকে কুমিল্লা জনপ্রতি ভাড়া ৯০-২৫০ টাকা।

চট্টগ্রাম থেকে বাসে কুমিল্লা

চট্টগ্রাম থেকে প্রিন্স, সৌদিয়া অথবা ঢাকাগামী যেকোন বাসে করে কুমিল্লা আসতে পারবেন। আবার ঢাকা গামী ট্রেনে করে বাসের চেয়ে দ্রুত কুমিল্লা পৌঁছাতে পারবেন।

কোথায় থাকবেন

কুমিল্লা শহরে কুমিল্লা ক্লাব, কুমিল্লা সিটি ক্লাবসহ বেশকিছু ভালো মানের আবাসিক হোটেল রয়েছে। এসব হোটেলে ১০০০ থেকে ৩০০০ টাকায় রাত্রি যাপন করতে পারবেন। এছাড়া মাঝারি মানের হোটেলের মধ্যে হোটেল চন্দ্রিমা, হোটেল শালবন, হোটেল আবেদিন (+88-81-76014), হোটেল সোনালী (+88-81-63188), হোটেল নিদ্রাবাগ, আশীক রেস্ট হাউস (+88-81-68781), হোটেল নুরজাহান (+88-81-68737) উল্লেখযোগ্য। এসব হোটেলে ২০০ থেকে ৬০০ টাকা ভাড়ায় থাকতে পারবেন।

কোথায় খাবেন

কুমিল্লায় বিভিন্ন মানের হোটেল/রেস্টুরেন্ট রয়েছে তাই নিজের প্রয়োজন অনুযায়ী যেকোন রেস্টুরেন্টে ঢুকে যেতে পারেন। চেখে দেখতে পারেন মনোহরপুর কালী বাড়িস্থ মাতৃভান্ডারের আসল রসমালাইয়ের স্বাদ।

আশেপাশের দর্শনীয় স্থান

ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রি ছাড়াও শালবন বিহার, ময়নামতি প্রত্নতত্ত্ব জাদুঘর, লালমাই পাহাড়, ব্লু-ওয়াটার পার্ক (পিকনিক স্পট) দেখতে পারেন।

ম্যাপে ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রি

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।