বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার মহাস্থানগড় থেকে ৬ কিলোমিটার দূরে বিহার গ্রামে প্রাচীন প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন ভাসু বিহার (Vasu Vihara) অবস্থিত। বগুড়ার স্থানীয় বাসিন্দারা নাগর নদীর পশ্চিমের এই জায়গাটিকে নরপতির ধাপ হিসেবে চিনেন। ভাসু বিহার থেকে গুপ্তযুগের দুইটি আয়তাকার বৌদ্ধ বিহার ও ক্রুশাকৃতি মন্দির আবিষ্কৃত হয়েছে।

১৯৭৩ থেকে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত ভাসু বিহারে প্রথম খনন কাজ করা হয়। খননের মাধ্যমে এখান থেকে দুইটি মধ্যম আকৃতির সংঘরাম, একটি মন্দিরের আংশিক অবকাঠামো এবং প্রায় ৮০০ টির মতো মুল্যবান প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন খুঁজে পাওয়া যায়। এদের মধ্যে ছোট মূর্তি, ব্রোঞ্জের বৌদ্ধ মূর্তি, পোড়ামাটির ফলক, সিলমোহর, মুল্যবান পাথরের গুটিকা, নকশাকৃত ইট, ফলক ও মাটির প্রদীপ ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য। ভাসু বিহারকে বৌদ্ধ সংঘারামের ধ্বংসাবশেষ হিসাবে মনে করা হয়। এখান থেকে আবিষ্কৃত বড় ও ছোট সংঘারামটির অবকাঠামো প্রায় একই রকম। এতে রয়েছে ২৬ টি কক্ষ, চারদিকে ঘোরানো বারান্দা ও প্রবেশ পথ। চীনের বিখ্যাত পরিব্রাজক হিউয়েন সাঙ এই স্থানকে “পো-শি-পো” বা “বিশ্ব বিহার” হিসেবে উল্লেখ করেছেন। এক সময় ভাসু বিহার বৌদ্ধদের গুরত্বপূর্ণ ধর্মীয় বিদ্যাপীঠ হিসেবে পরিচিত ছিল।

কিভাবে যাবেন

ঢাকা থেকে ভাসু বিহারে যাওয়ার জন্য প্রথমে বগুড়া শহরে যেতে হবে। ঢাকা থেকে বাস, ট্রেন বা নিজস্ব পরিবহনে বগুড়া যেতে পারবেন। ঢাকার গাবতলী, মহাখালী, শ্যামলী, আব্দুল্লাপুর ও কল্যানপুর থেকে বগুড়া যাওয়ার বিভিন্ন বাস রয়েছে। আবার ঢাকার কমলাপুর থেকে ট্রেনে লালমনি বা রংপুর এক্সপ্রেসে বগুড়া যেতে পারবেন। বগুড়া থেকে ভাসু বিহারের দূরত্ব ২০ কিলোমিটার। বগুড়া শহর থেকে সিএনজি বা অটো রিকশায় গোকুল মেধ রোড দিয়ে বীর শ্রেষ্ঠ স্কোয়ারে ঢুকে ভাসু বিহার যাওয়া যায়।

কোথায় থাকবেন

বগুড়ায় অবস্থিত আবাসিক হোটেলের মধ্যে মম ইন, হোটেল নাজ গার্ডেন, পর্যটন মোটেল, সেফওয়ে মোটেল, সেঞ্ছুরি মোটেল, মোটেল ক্যাসেল উল্লেখযোগ্য।

কোথায় খাবেন

বগুড়া শহরে সাথী হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্ট, মায়ের দোয়া হোটেল, অতিথি গার্ডেন রেস্টুরেন্ট, চাপ কর্নার ও হোটেল সাফিনার মতো বেশকিছু রেস্টুরেন্ট আছে। তবে অবশ্যই বগুড়া শহরের বিখ্যাত দইয়ের স্বাদ নিতে ভুল করবেন না।

অন্যান্য দর্শনীয় স্থান

বগুড়ার অন্যান্য দর্শনীয় স্থানের মধ্যে মহাস্থানগড়, খেরুয়া মসজিদ, গোকুল মেধ, রানী ভবানীর পিতৃালয় ও ভীমের জাঙ্গাল উল্লেখযোগ্য।

ফিচার ইমেজ: সেলিম রানা

ম্যাপে ভাসু বিহার

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।