চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের ফিরোজপুরে মোঘল আমলের অন্যতম প্রাচীন স্থাপনা তিন গম্বুজ মসজিদ (Tin Gombuj Masjid) অবস্থিত। মধ্যযুগের প্রখ্যাত ইসলাম প্রচারক শাহ্‌ সৈয়দ নেয়ামতউল্লাহ্‌কে উদ্দেশ্য করে বঙ্গ সুলতান শাহ্‌ সুজা এই মসজিদটি নির্মাণ করেন। বাংলাদেশের প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের তালিকাভুক্ত এই ঐতিহাসিক প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনাটি শাহ্‌ নেয়ামত উল্লাহ্‌ মসজিদ হিসেবেও সুপরিচিত।

আয়তাকৃতি তিন গম্বুজ মসজিদে বিশাল একটি মসজিদ ঘর, ৩টি মেহরাব এবং সামনের দিকে ৩টি প্রবেশ পথ রয়েছে। ৩টি প্রবেশ পথের মাঝখানের দরজাটি অপেক্ষাকৃত বৃহদাকৃতির। মসজিদের কাছে শাহ্‌ নেয়ামত উল্লাহ্‌র সমাধি এবং সুলতান শাহ্‌ সুজা কর্তৃক নির্মিত মোঘল আমলের একটি দ্বিতল ইমারত রয়েছে। ১১৬ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৩৮ ফুট প্রস্থ বিশিষ্ট সুলতান শাহ্‌ সুজার ইমারতটি “তাহাখানা” নামে পরিচিত। তিন গম্বুজ মসজিদ, প্রাসাদ এবং শাহ্‌ নেয়ামত উল্লাহ্‌র সমাধি তাহাখানা কমপ্লেক্সের অন্তর্ভুক্ত। সুলতান শাহ্‌ সুজা তাঁর মোরশেদ হযরত শাহ্‌ নেয়ামত উল্লাহর শীতকালে বসবাসের সুবিধার্থে এই ভবনটি নির্মাণ করেছিলেন।

কিভাবে যাবেন

ঢাকা হতে সড়ক ও রেলপথে চাঁপাইনবাবগঞ্জ যাওয়া যায়। রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে মর্ডান, হানিফ বা শ্যামলীর মতো ভাল মানের বাস চাঁপাইনবাবগঞ্জের পথে চলাচল করে। কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে কপোতাক্ষ, তিতুমির, সিল্কসিটি বএবং পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনে রাজশাহী হয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ যাওয়া যায়। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শহর থেকে সিএনজি বা অটোরিকশায় প্রায় ২৮ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ছোট সোনা মসজিদ পেরিয়ে আরো আধা কিলোমিটার এগিয়ে গেলেই তাহাখানা কমপ্লেক্সে অবস্থিত তিন গম্বুজ মসজিদ দেখতে পাবেন।

কোথায় থাকবেন

চাঁপাইনবাবগঞ্জে হোটেল রাজ, হোটেল আল নাহিদ, হোটেল স্বপ্নপুরী, হোটেল রংধনু, হোটেল নাজমা ও হোটেল স্কাই ভিউয়ের মতো বেশ কিছু আবাসিক হোটেল রয়েছে। এছাড়া জেলা পরিষদের ডাক বাংলো এবং সার্কিট হাউজে অনুমতি নিয়ে রাত্রিযাপন করতে পারবেন।

কোথায় খাবেন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরে সারুয়ার হোটেল, ভাই ভাই হোটেল, শরিফা হোটেল মতো বেশ কিছু খাবারের রেস্তোরা আছে। আর সুযোগ হলে শিবগঞ্জের আদি চমচম খেয়ে দেখতে পারেন।

অন্যান্য দর্শনীয় স্থান

চাঁপাইনবাবগঞ্জের অন্যান্য দর্শনীয় স্থানের মধ্যে খনিয়াদীঘি মসজিদ, আলপনা গ্রাম টিকইল, দারাসবাড়ী মসজিদ ও ছোট সোনা মসজিদ উল্লেখযোগ্য।

ফিচার ইমেজ: Wikipedia

ম্যাপে তিন গম্বুজ মসজিদ

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।