হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার পুটিজুরী পাহাড়ে ৫ তারকা মানের দ্যা প্যালেস রিসোর্ট (The Palace Luxury Resort) অবস্থিত। রিসোর্টের চারপাশে সবুজ পাহাড়ের সমারোহ আর মেঘের লুকোচুরি খেলা মনকে সহজেই প্রফুল্য করে তোলে। প্রায় ১৫০ একর পাহাড়ি ভূমিতে ৩০ হাজার গাছ, ঝর্ণা, চা বাগান, রাবার বাগান দিয়ে সাজিয়ে পরিপূর্ণ করে দ্যা প্যালেস রিসোর্টের ভিলা গুলো গড়ে তোলা হয়েছে। চমৎকার নির্মাণশৈলী ও মনোরম পরিবেশের এই রিসোর্ট সত্যিকার অর্থেই যেন এক রাজপ্রাসাদ। হানিমুন কিংবা পরিবার নিয়ে নিরিবিলিতে ছুটির সময় কাটাতে চাইলে দ্যা প্যালেস লাক্সারি রিসোর্ট একটি অতুলনীয় স্থান।

রুম ভাড়া

দ্যা প্যালেস রিসোর্ট ও স্প্যা তে অগ্রিম বুকিং দিয়ে যেতে হয়। নিরাপত্তা এবং সেবার সর্বোচ্চ মান বজায় রাখতে এখানে বহিরাগত কাউকেই প্রবেশ করতে দেয়া হয় না। থাকার জন্য এই রিসোর্টে ২ ধরনের রুমের ব্যবস্থা রয়েছে। টাওয়ার বিল্ডিং এ ভিন্ন ভিন্ন ক্যাটাগরির রুম নিতে নূন্যতম ১২,৫০০ থেকে ১৭,৫০০ টাকা গুনতে হয় আর ভিলায় ভিন্ন ভিন্ন ক্যাটাগরির প্রতি রুমের জন্য খরচ করতে হয় নূন্যতম ১৮,২০০ থেকে ১,২০,০০০ টাকা পর্যন্ত। (রুমের ভাড়ার সাথে ১৫% ভ্যাট এবং ১০% সার্ভিজ চার্জ প্রযোজ্য।)

যেভাবে যাবেন

ঢাকা থেকে বাসে, ট্রেনে, গাড়ি এবং হেলিকপ্টারে করে দ্যা প্যালেস রিসোর্টে যাওয়া যায়।
ঢাকা থেকে সিলেটগামী বাসে করে হবিগঞ্জের ‍বাহুবল উপজেলার পুটিজুরি বাজারে এসে সি.এন.জি করে দ্যা প্যালেস রিসোর্ট ও স্প্যা তে যাওয়া যায়। এছাড়া সিলেট এসে রিসোর্ট কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করলে নিদৃষ্ট চার্জের (৩,০০০ – ৫,০০০ টাকা) বিনিময়ে রিসোর্টের গাড়িতে যাবার সুযোগ রয়েছে।

দ্যা প্যালেস রিসোর্টের অন্যান্য সুযোগ সুবিধাসমূহ
* ৪ টি বড় সভা কক্ষ এবং প্রায় ৪০০ জনের ব্যাংকুয়েট হল
* ৫ টি রেস্টুরেন্ট
* ফ্রি ওয়াই-ফাই
* টেনিস, ব্যাটমিন্টন এবং বাস্কেটবল কোর্ট
* কিডস জোন
* ফিশিং জোন
* সিনেপ্লেক্স
* গেম জোন
* সুইমিংপুল
* সাইকেল রাইডিং
* জিম বা ব্যায়ামাগার
* বার
* হেলিকপ্টার রাইড
এবং
* প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য সার্বক্ষনিক ডাক্তার।
ইনডোর গেমসের মধ্যে রয়েছে ভিডিও গেমস, কার্ট রেসিং, বিলিয়ার্ড, দাবা, টেবিল টেনিস, টেনিস ইত্যাদি। তবে বেশ কিছু সুযোগ নিতে হলে এখানে অর্থ খরচ করতে হয় যেমন ৭ মিনিটের হেলিকপ্টার রাইডে গুনতে হয় প্রায় ৫০০০ টাকা। আর ইচ্ছে মত সাইকেল চালাতে লাগবে ২০০ টাকা। এছাড়া ফিশিং জোনে মাছ শিকারের পর তা রান্না করতে হলে অতিরিক্ত চার্জ দিতে হবে।

অফার

দ্যা প্যালেস রিসোর্টে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের অফার চালু থাকে। দ্যা প্যালেসের বর্তমান এক্সক্লুসিভ অফার সম্পর্কে জানতে দ্যা প্যালেসের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ও ফেইসবুক ফ্যান পেইজ থেকে ঘুরে সতে পারেন।

যোগাযোগ:
পুটিজুরি, বাহুবল, হবিগঞ্জ
+88 019 9000 1000, +88 019 1000 1000
ইমেইল: info@thepalacelife.com
ফেসবুক: www.facebook.com/thepalaceluxuryresort
ওয়েবসাইট: www.thepalacelife.com

কর্পোরেট হেড অফিস

গ্রীন প্যানেট রিসোর্ট লিমিটেড
House # 14, Road # 3, Sector # 6
উত্তরা, ঢাকা – 1230

খাবার

খাওয়া-দাওয়ার জন্য দ্যা প্যালেস রিসোর্টে ভিয়েতনামি খাবারের জন্য সায়গন, ইন্ডিয়ান, কন্টিনেন্টাল ও ওরিয়েন্টাল খাবারের জন্য অলিভ, রিভলেশন, অ্যারাবিয়ান লাউঞ্জ এবং স্ট্রিট ফুডের জন্য নস্টালজিয়া নামের রেস্টুরেন্ট রয়েছে। তবে বাফেটের বাইরে আলাদা খাবার এখানে বেশ ব্যয়বহুল। লাঞ্চ এবং ডিনার বাফেট মূল্য যথাক্রমে ১,২৫০ ও ১,৫০০ টাকা। (মূল্যের সাথে ১৫% ভ্যাট এবং ১০% সার্ভিজ চার্জ প্রযোজ্য)। বলে রাখা ভাল, লাঞ্চ এবং ডিনার বাফেট মূল্যের সাথে পানি এবং কোমল পানীয়ের খরচ যুক্ত নয়।

দ্যা প্যালেস রিসোর্টে রুম বুকিং দিয়ে উপস্থিত হবার পর যেসব সুবিধা পাবেন:

* দুজনের সকাল বেলার ব্যুফে নাস্তা (সকাল ১০:৩০ পর্যন্ত), ৫ বছর বয়সে নিচে বাচ্চাসহ ৩ জন হলে সে জন্য কোন অতিরিক্ত চার্জ প্রযোজ্য নয়।
* ২ লিটার পানি ও চা/কফি বানানোর সরঞ্জাম
* টুথপেস্ট-টুথব্রাশ, শ্যাম্পু, সাবান, লোশন
* ওজন মাপার মেশিন
* লকার
* শাওয়ার ড্রেস, জুতা, শাওয়ার ক্যাপ, লন্ড্রি ব্যাগ
* পুরো এরিয়ার ম্যাপ, কলম, প্যাড এবং
* ফ্রী ওয়াইফাই

আশেপাশে ঘুরতে চাইলে

অপরুপ প্রাকৃতিক পরিবেশের কারণে দ্যা প্যালেসে আগত অথিতিরা সাধারনত এই রিসোর্টেই তাদের অবকাশ যাপন করে ফিরে যান। তবে মাত্র ৩৮ কিলোমিটার দূরে শ্রীমঙ্গলে বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান থাকায় অনেকেই শ্রীমঙ্গলের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান, চা বাগান এবং মাধবপুর লেক থেকে ঘুরে আসেন।

[বি: দ্র: উপরে উল্লেখিত সকল ধরনের মূল্য বা খরচের পরিমান পরিবর্তনশীল]

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।