পাবনা জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত বনমালী রায় বাহাদুরের তাড়াশ রাজবাড়ী (Tarash Rajbari) এই অঞ্চলের সবচেয়ে পুরাতন ও ঐতিহ্যবাহী রাজবাড়ী হিসাবে সুপরিচিত। বগুড়া জেলার কোদলা গ্রামে তাড়াশের রায় বংশের পূর্বপুরুষ বাসুদেব অর্থাৎ তাড়াশ পরিবার জেলার সবচেয়ে বড় জমিদার ছিলেন। নবাব মুর্শিদকুলি খানের রাজস্ব বিভাগে চাকরি করে বাসুদেব তাড়াশ রাজবাড়ী প্রতিষ্ঠা করেন। পরবর্তীতে বাসুদেব নবাব মুর্শিদকুলি খান কতৃক ‘রায়চৌধুরী’ খেতাবে ভূষিত হন। বাসুদেবের এষ্টেটে মৌজার পরিমাণ ছিল প্রায় ২০০টি।

বনমালী রায় ও বনওয়ারী লাল রায় ঐতিহাবাহী বনমালী ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করেন। ২য় বিশ্বযুদ্ধের সময় জমিদার পরিবার তাড়াশ রাজবাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিলেন। দুই তলা বিশিষ্ট তারাশ রাজবাড়ী ভবন ২ টি বৃত্তাকার স্তম্ভের উপর নির্মিত। প্রাসাদের সামনে রয়েছে খোলা প্রাঙ্গন ও বিশালাকার প্রবেশ ফটক। তারশ রাজবাড়ির নির্মাণে ইউরোপীয় রেনেসাঁ রীতির প্রভাব লক্ষ করা যায়। আয়তাকার মূল ভবনের দৈর্ঘ্য ১০০ ফুট এবং প্রস্থ ৬০ ফুট। ৪টি কোরিনথিয়ান স্তম্ভের উপর দ্বিতল গাড়িবারান্দা এই ভবনকে করেছে আরও আকর্ষণীয়। তাড়াশ রাজবাড়ী বিভিন্ন সময়ে সরকারী দফতর হিসেবে ব্যবহার করে হয়েছে ফলে এই জমিদার বাড়ীটি এখনো বেশ ভালো অবস্থায় রয়েছে। বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ কতৃক সংরক্ষিত তারাশ রাজবাড়ীতে সারাদেশ থেকে অসংখ্য দর্শনার্থী ভ্রমণে আসে।

কিভাবে যাবেন

দেশের যেকোন প্রান্ত থেকে পাবনা (Pabna) জেলায় এসে রিকশা বা ইজিবাইক ভাড়া করে শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত তারাশ রাজবাড়ী দেখতে যেতে পারবেন। রাজধানী ঢাকার গাবতলি টেকনিক্যাল মোড় থেকে পাবনা আসার বেশকিছু বাস ছেড়ে যায়। এ সমস্ত পাবনাগামী নন-এসি এবং এসি বাসের মানভেদে জনপ্রতি ভাড়া ৪০০ টাকা থেকে ৭০০ টাকা।

কোথায় থাকবেন

পাবনায় থাকার জন্য বেশকিছু বিভিন্ন মানের এসি, নন-এসি আবাসিক হোটেল পাবেন। প্রয়োজনে নিচের হোটেলগুলোতে যোগাযোগ করতে পারেন: হোটেল প্রবাসী ইন্টার ন্যাশনাল (01749-148685), হোটেল শিলটন (0731-62006, 1712-433249), হোটেল পার্ক (0731-64096), প্রাইম গেস্ট হাউস (0731-65701, 0731-66901), স্বাগতম হোটেল এন্ড চাইনিজ রেস্টুরেন্ট (0731-64029, 0731-65861), ছায়ানীড় হোটেল (0731-66100, 0731-65390), মিড নাইট মুন চাইনিজ রেস্টুরেন্ট (0731-65787)

কোথায় খাবেন

পাবনা আব্দুল হামিদ রোডে বেশ কিছু খাবার হোটেল রয়েছে এর মধ্যে স্বাগতম হোটেল এন্ড চাইনিজ রেস্টুরেন্ট, ছায়ানীড়, মিড নাইট মুন চাইনিজ রেস্টুরেন্ট উল্লেখযোগ্য।

ফিচার ইমেজ: আরিফুল রাজিব

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।