সবুজ পাহাড় আর টিলায় ঘেরা সিলেট জেলা প্রকৃতির রূপে অনন্য। সিলেটের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সিলেটকে সুন্দরী শ্রীভূমি আখ্যা দিয়েছিলেন। সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় অবস্থিত বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত তেমনি এক স্থানের নাম তামাবিল (Tamabil)। সিলেট-জাফলং রোড ধরে এগিয়ে যেতে থাকলে জাফলংয়ের ৫ কিলোমিটার পুর্বে তামাবিলের দেখা মিলবে। সিলেট জেলা থেকে তামাবিলের দূরত্ব প্রায় ৫৫ কিলোমিটার। তামাবিল মূলত বাংলাদেশের সিলেট এবং ভারতের শিলং মধ্যকার সীমান্ত সড়কের একটি চৌকি।

তামাবিল থেকে ভারতের মেঘালয় রাজ্যের পাহাড়, ঝর্ণা সহ বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান দেখা যায়। তাই অপূর্ব প্রাকৃতিক দৃশ্যে বিমোহিত হতে প্রচুর দর্শনার্থী তামাবিল ঘুরতে আসেন। তামাবিলে যাবার পথের বাকেবাকে বিশাল পাহাড় ও ঝর্ণার এক পলক দর্শন তামাবিল ভ্রমণের আগ্রহ বহুগুণ বাড়িয়ে তোলে। প্রকৃতির আয়োজন এছাড়াও তামাবিলের সৌন্দর্য উপভোগের জন্য আছে স্বচ্ছ পানির লেক, তামাবিল জিরো পয়েন্ট এবং জৈন্তা হিল রিসোর্ট।

কিভাবে যাবেন

তামাবিল যেতে চাইলে প্রথমে চায়ের দেশ সিলেটে আসতে হবে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সিলেটে আসা যায়। রাজধানী ঢাকা হতে বাস, ট্রেন কিংবা আকাশপথে সিলেট যাওয়া যায়।

ঢাকা থেকে সিলেট: ঢাকার ফকিরাপুল, গাবতলী, সায়েদাবাদ এবং মহাখালি বাস টার্মিনাল সিলেটগামী বিভিন্ন এসি/নন-এসিবাস ছেড়ে যায়৷ নন-এসি বাসের জনপ্রতি ভাড়া ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা এবং এসি বাসের ভাড়া ৮০০ থেকে ১২০০ টাকা। ঢাকা থেকে সিলেট পৌঁছাতে সাধারণত ৬ ঘন্টা সময় লাগে।

ঢাকার কমলাপুর কিংবা বিমানবন্দর রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে উপবন, জয়ন্তিকা, পারাবত কিংবা কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনে সিলেট যেতে পারবেন। ট্রেনের জনপ্রতি টিকেটের মূল্য শ্রেণিভেদে ২৮০ থেকে ১২০০ টাকা। ট্রেনে চড়ে সিলেট যেতে ৭-৮ ঘন্টা সময় লাগে।

ঢাকা থেকে সবচেয়ে দ্রুত সময়ে ও সাচ্ছন্দে যেতে আকাশ পথকে বেছে নিতে পারেন। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিমান বাংলাদেশ, রিজেন্ট এয়ার, ইউনাইটেড এয়ার, নভো এয়ার এবং ইউএস বাংলা এয়ারের বিমান প্রতিদিন সিলেটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। ক্লাস অনুযায়ী জনপ্রতি বিমান ভাড়া ৩০০০-১০,০০০ টাকা হয়ে থাকে।

সিলেট থেকে তামাবিল: লোকাল বাসে তামাবিল যেতে চাইলে সিলেট শহরের শিবগঞ্জে আসুন সেখান থেকে জনপ্রতি ৮০ টাকা ভাড়ায় তামাবিল যেতে পারবেন। সিএনজি বা অটোরিকশায় তামাবিল যেতে ১২০০ থেকে ২০০০ টাকা ভাড়া লাগবে। আর মাইক্রোবাস সারাদিনের জন্যে রিজার্ভ নিতে ভাড়া লাগবে ৩০০০ থেকে ৫০০০ টাকা। এছাড়া সিলেট নগরীর যেকোন স্থান থেকে জাফলংগামী যানবাহনে তামাবিল যেতে পারবেন।

কোথায় থাকবেন

তামাবিলে জৈন্তা হিল রিসোর্ট নামে একটি ভাল মানের আবাসন ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়া জাফলংয়ের গেস্ট হাউজ ও জেলা পরিষদের বাংলোতে আগেই বুকিং দিয়ে থাকতে পারবেন। এছাড়া সিলেটের লালাবাজার ও দরগা রোডে কম খরচে থাকার বেশকিছু মানসম্মত রেস্ট হাউস রয়েছে৷

ফিচার ইমেজ: মুহিন রিয়াদ

ম্যাপে তামাবিল

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।