নরসিংদী জেলার শিবপুর উপজেলার বাগাঘ ইউনিয়নের কুন্দেরপাড়ায় লালমাটির শহর সোনাইমুড়ি টেক (Sonaimuri Tek) অবস্থিত । লাল মাটির পাহাড়ি টিলা, সমতল ভূমির বসতবাড়ি, পাখির কল-কাকলী ও অপার সৌন্দর্যে পরিপূর্ণ সোনাইমুড়ি বিনোদন পার্কে ছুটির দিনগুলোতে থাকে উপচে পড়া ভিড়।

নরসিংদী থেকে শিবপুর যাওয়ার পথে নজরে পড়বে গাছ গাছালীতে ঘেরা অসংখ্য লাল মাটির টিলা। টিলার উপর থেকে পাহাড় ও সমতলের মনোমুগ্ধকর দৃশ্য সকলকে মুগ্ধ করে। লাল মাটির এই টিলার মাঝ দিয়ে চলে গিয়েছে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক। শুটিং স্পট হিসেবে জনপ্রিয় এই জায়গায় প্রায়ই বিভিন্ন নাটক ও সিনেমার শুটিং হয়ে থাকে। এছাড়া শিশুদের জন্য সোনাইমুড়ি টেকে রয়েছে বেশ কিছু বিনোদনের ব্যবস্থা।

প্রবেশমূল্য ও সময়সীমা

সপ্তাহের সাতদিন খোলা সোনাইমুড়ি টেক পার্কে প্রবেশ মূল্য ২০ টাকা।

কিভাবে যাবেন

ঢাকা থেকে নরসিংদীর দূরত্ব প্রায় ৪৯ কিলোমিটার। ঢাকা থেকে ট্রেন কিংবা বাসে নরসিংদী যাওয়া যায়। ঢাকার মহাখালী, গুলিস্থান, সায়েদাবাদ ও আব্দুল্লাহপুর থেকে ঢাকা-সিলেট রোডে চলাচলকারী বাসে কাঁচপুর ব্রিজ পার হয়ে নরসিংদী যাওয়া যায়। বাস ভেদে ভাড়া পড়বে ১০০ থেকে ২০০ টাকা। আবার রেলপথে ঢাকার কমলাপুর রেলষ্টেশন থেকে মহানগর এক্সপ্রেস, কিশোরগঞ্জ এক্সপ্রেস ও এগারোসিন্দুর গোধূলির মতো ট্রেনে নরসিংদী যাওয়া যায়। নরসিংদী থেকে সোনাইমুড়ি টেক বিনোদন পার্কের দূরত্ব মাত্র ১৪ কিলোমিটার। নরসিংদী থেকে শিবপুরের কুন্দেরপাড়া পৌঁছে রিক্সায় চড়ে সোনাইমুড়ি টেক বিনোদন পার্কে যেতে পারবেন।

কোথায় থাকবেন

সোনাইমুড়ি টেক বিনোদন পার্কের পাহাড়ি টিলাতে বেশকিছু বাংলো ও হোটেল গড়ে উঠেছে। এসব হোটেল ও বাংলোতে রাত্রিযাপন করতে চাইলে আগে থেকে বুকিং দিয়ে রাখতে হবে। এছাড়া নরসিংদী শহরে সরকারী ও বেসরকারি বিভিন্ন রেস্ট হাউস ও আবাসিক হোটেলের ব্যবস্থা রয়েছে।

কোথায় খাবেন

নরসিংদী থেকে সোনাইমুড়ি টেকে যাবার পথে সবুজ বাংলা হোটেল, হোটেল বুশরা, গ্রামীণ হোটেল ও আল আমিন হোটেলের মতো বেশ কিছু রেস্টুরেন্ট নজরে পড়বে।

নরসিংদীর অন্যান্য দর্শনীয় স্থান

সোনাইমুড়ি টেকের পাশেই রয়েছে অন্যতম একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান “কুমারটেক”। খ্রিস্টপুর্ব তিন হাজার বছরের পুরনো মৃৎশিল্পের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে এখানে। আরও দেখতে পারবেন সৃষ্টি গড়, ইটাখোলা,জয়নগর, মরাজালের লাল মাটির বাড়ী ও প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন। নরসিংদীর অন্যান্য দর্শনীয় স্থানের মধ্যে আনন্দ পার্ক, গিরিশ চন্দ্র সেনের বাড়ী, লক্ষণ সাহার জমিদার বাড়ী, বালাপুর জমিদার বাড়ী, বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান গ্রন্থাগার ও স্মৃতি জাদুঘর ও ড্রিম হলিডে পার্ক ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

ফিচার ইমেজ: জুনাইদ শাহীন

ম্যাপে সোনাইমুড়ি টেক

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।