ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা থেকে ২০ কিলোমিটার পশ্চিমে ভাউলারহাটের কাছে ঐতিহাসিক শালবাড়ি মসজিদ (Shalbari Mosque) অবস্থিত। শালবাড়ি মসজিদের থেকে প্রাপ্ত শিলালিপির তথ্যানুসারে, ১২১৫ বঙ্গাব্দে এই মসজিদটি নির্মাণ করা হয়। পরবর্তীতে সংস্কারের ফলে মসজিদটির মূল নকশায় বিপুল পরিবর্তন সাধিত হয়। শালবাড়ি মসজিদ থেকে কিছুটা দূরে ভগ্নাবস্থায় একটি ইমামবাড়া (Imambara) রয়েছে। শালবাড়ি মসজিদ ও ইমামবাড়া এ দুটি স্থাপনাকে সমসাময়িক বলে ধারণা করা হয়। ইমামবাড়ার বাইরের অংশের দৈর্ঘ্য ১৯ ফুট ৬ ইঞ্চি এবং প্রস্থ ১৩ ফুট। এছাড়া পূর্ব ও পশ্চিম দিকের দেয়ালে ২টি করে ৪টি এবং উত্তর ও দক্ষিণে ১ করে ২টি দরজা রয়েছে। ইমামবাড়াতে বিভিন্ন ধরণের ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়ে থাকে।

কিভাবে যাবেন

ঢাকা থেকে সড়ক ও রেলপথে ঠাকুরগাঁও যাওয়া যায়। কর্ণফুলি পরিবহন, হানিফ এন্টারপ্রাইজ, নাবিল পরিবহন, বাবলু এন্টারপ্রাইজ ও কেয়া পরিবহন প্রভৃতি বাসে ঢাকা হতে ঠাকুরগাঁও যেতে পারবেন। ঠাকুরগাঁও জেলা শহর হতে অটোরিকশা বা সিএনজি নিয়ে ভাউলারহাটের কাছে অবস্থিত শালবাড়ি মসজিদ যাওয়া যায়।

কোথায় থাকবেন

ঠাকুরগাঁওয়ের নর্থ সার্কুলার রোডে হোটেল সালাম ইন্টার ন্যাশনাল, হোটেল প্রাইম ইন্টারন্যাশনাল, হোটেল শাহ্‌ জালাল ও হোটেল সাদেক সহ বেশকিছু আবাসিক হোটেল রয়েছে।

কোথায় খাবেন

ভাউলারহাটে হালকা চা-নাস্তার করার মতো কিছু দোকান আছে। তবে ঠাকুরগাঁও জেলা সদরে গাউসিয়া হোটেল, নিউ সুরুচি হোটেল ও হাজী বিরিয়ানি হাউজ প্রভৃতি ভালমানের খাবার হোটেল ও রেস্টুরেন্ট রয়েছে।

ঠাকুরগাঁও জেলার দর্শনীয় স্থান

ঠাকুরগাঁও জেলার অন্যান্য দর্শনীয় স্থানের মধ্যে বালিয়াডাঙ্গী সূর্যপূরী আমগাছ, লোকায়ন জীবন বৈচিত্র্য জাদুঘর, বালিয়া মসজিদ ও ফানসিটি উল্লেখযোগ্য।

ম্যাপে শালবাড়ি মসজিদ ও ইমামবাড়া

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।