১৯৭১ সালের ৫ মে নাটোর জেলার গোপালপুরের আজিমপুর এলাকার নর্থ বেঙ্গল চিনি কারখানায় পাকবাহিনীর নির্মমতা ও গণহত্যার এক জ্বলন্ত সাক্ষী শহীদ সাগর (Shahid Sagar)। পাকিস্থানি সেনারা সুগার মিলের শতাধিক কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শ্রমিককে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সুগার মিলের অতিথি ভবনের সামনের পুকুর পাড়ে ব্রাশ ফায়ার করে হত্যা করে। সেদিন গোপাল সাগর হিসেবে পরিচিত পুকুরের পানি শহীদদের রক্তে রঞ্জিত হয়ে উঠেছিল। যদিও এই ঘটনায় কয়েকজন ভাগ্যক্রমে বেঁচে গিয়েছিলেন। দেশ স্বাধীন হবার পর দুঃসহ স্মৃতিবিজরিত এই পুকুরটিকে শহীদ সাগর নামকরণ করা হয়। ১৯৭৩ সালের ৫ মে শহীদের স্মরণে শহীদ সাগর স্মৃতিস্তম্ভ ও স্মৃতিস্তম্ভের পূর্ব দিকে একটি ফুলের বাগান গড়ে তোলা হয়েছে। ২০০০ সালের ৫ মে শহীদ সাগর চত্বরে একটি স্মৃতি যাদুঘর নির্মাণ করা হয়। প্রতিবছর ৫ মে নানা আয়োজনের মধ্যে দিয়ে গোপালপুরের শহীদের স্মরণে নর্থ বেঙ্গল সুগার মিল গনহত্যা দিবস পালন করা হয়।

জনশ্রুতি আছে, স্বাধীনতার কয়েক বছর পরও এই পুকুরের পানি শহীদদের জমাট বাধা রক্তে লাল হয়ে ছিল। এখনও পুকুর পাড়ের সিঁড়িতে প্রতীকী লাল রক্তের চিহ্ন রয়েছে।

কিভাবে যাবেন

রাজধানী ঢাকার কল্যাণপুর ও গাবতলী থেকে হানিফ, ন্যাশনাল ট্রাভেলস, দেশ ট্রাভেলস, গ্রামীণ, তুহিন-এলিট পরিবহণে টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু-সিরাজগঞ্জ রুটে নাটোর যাওয়া যায়। আর কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে রংপুর, লালমনি এক্সপ্রেস, দ্রুতযান বা নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনে চড়ে নাটোর যেতে পারবেন। নাটোর জেলা সদর থেকে বাস, সিএনজি বা অটোরিক্সায় চড়ে প্রায় ৩১ কিলোমিটার দূরে নর্থ বেঙ্গল চিনি কারখানায় অবস্থিত শহীদ সাগর পৌঁছাতে পারবেন।

কোথায় থাকবেন

রাত্রিযাপনের জন্য নাটোরের মাদ্রাসা মোড় ও রেলওয়ে ষ্টেশনে হোটেল ভিআইপি, হোটেল মিল্লাত, হোটেল প্রিন্স, হোটেল রাজ, হোটেল রুখসানা ও নাটোর বোর্ডিং সহ বেশকিছু আবাসিক হোটেল রয়েছে।     

কোথায় খাবেন

নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলের কাছে অর্পিতা কফি হাউজ ও গোপালপুর বাজারে হালকা খাবার খেতে পারবেন। নাটোর শহরের বনপাড়াতে ওয়ান সেভেন হোটেল, হোটেল ফাইভ স্টার, মোল্লা হোটেল এবং ক্যাফে হট ও চিলির মতো বেশ কয়েকটি রেস্টুরেন্ট রয়েছে। নাটোরের জনপ্রিয় খাবারের মধ্যে মাছ ও কাঁচাগোল্লা অন্যতম।

নাটোরের দর্শনীয় স্থান

নাটোরের দর্শনীয় স্থানের মধ্যে চলনবিল জাদুঘর, চলন বিল, রানী ভবানী নাটোর রাজবাড়ী ও উত্তরা গনভবন প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।

ম্যাপে শহীদ সাগর

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।