চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্রে সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক পরিবেশে মাথাভাঙ্গা তীরে পুলিশ পার্ক (Police Park) অবস্থিত। পুলিশ সুপার রোডের এই বিনোদন কেন্দ্রটি ইতিমধ্যে চুয়াডাঙ্গা শহরের ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। মনোরম ও নিরিবিলি পরিবেশের পুলিশ পার্কে বিনোদনের জন্য আছে বিভিন্ন আকর্ষণীয় রাইড, উন্মক্ত মঞ্চ, মিনি চিড়িয়াখানা সহ সকল আধুনিক সুযোগ সুবিধা।

এছাড়া পুলিশ পার্ক কমিউনিটি সেন্টার এন্ড চাইনিজ রেস্টুরেন্টে বিয়ে, জন্মদিন, সেমিনার সহ যেকোন সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজনের সুব্যবস্থা রয়েছে। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত পুলিশ পার্ক সকল দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকে। বুকিং এবং বিস্তারিত তথ্য জানতে যোগাযোগ: 01743-383838

ঢাকা থেকে চুয়াডাঙ্গা জেলা কিভাবে যাবেন

রাজধানী ঢাকা হতে চুয়াডাঙ্গার দূরত্ব ২৫০ কিলোমিটার। ঢাকা থেকে বাস এবং ট্রেনে চুয়াডাঙ্গা জেলায় যাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

ঢাকা থেকে বাসে চুয়াডাঙ্গা : গাবতলী এবং সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল হতে মানভেদে বাসে করে চুয়াডাঙ্গা জেলায় যেতে জনপ্রতি ৩০০ থেকে ৫০০ টাকা ভাড়া লাগে। উল্লেখযোগ্য বাস সার্ভিসের মধ্যে পর্যটক পরিবহণ (01719-813004), স্কাই লাইন, পাবনা এক্সপ্রেস (02-9008581) এবং চুয়াডাঙ্গা এক্সপ্রেস উল্লেখযোগ্য।

ঢাকা থেকে ট্রেনে চুয়াডাঙ্গা : কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে চিত্রা, তূর্ণা ও সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেন যমুনা সেতু পাড় হয়ে চুয়াডাঙ্গার পথে যাত্রা করে। শ্রেণীভেদে ঢাকা থেকে চুয়াডাঙ্গা পর্যন্ত জনপ্রতি ট্রেনের টিকেটের মূল্য ৩৫০ থেকে ৭০০ টাকা।

কোথায় থাকবেন

চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের সাধারণ মানের আবাসিক হোটেলে রাত্রি যাপন করতে পারবেন। এসব হোটেলে এক রাত থাকতে খরচ হবে ১০০ থেকে ৫০০ টাকা। উল্লেখযোগ্য আবাসিক হোটেলের মধ্যে রয়েছে – হোটেল অবকাশ (0761-62288), হোটেল আল মেরাজ (0761-62383), অন্তুরাজ আবাসিক হোটেল (0761-62702), হোটেল প্রিন্স (0761-62378)।

কোথায় খাবেন

পুলিশ পার্কের চাইনিজ রেস্টুরেন্টে থাই, চাইনিজ এবং বাংলা সহ বিভিন্ন ধরণের খাবার পাওয়া যায়।

ফিচার ইমেজ: চয়ন রায়

ম্যাপে পুলিশ পার্ক

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।