নড়াইল জেলা সদরের কলোড়া ইউনিয়নের গোয়ালবাড়ি গ্রাম বাংলাদেশে ভোঁদড় দিয়ে মাছ শিকারের জন্য বিশেষভাবে প্রসিদ্ধ। দেশব্যাপী ভোঁদড় দ্বারা মাছ ধরার সনাতন এই পদ্ধতির বিলুপ্তি ঘটলেও গোয়ালবাড়ি গ্রামের প্রায় ২৬২৭ টি পরিবার আজো এই প্রাচীন পদ্ধতিতে মাছ ধরে থাকে। ভোদড় প্রচন্ডভাবে মাছের প্রতি আসক্ত একটি প্রাণী। ভোদড়ের এমন আচরণকে কাজে লাগিয়ে স্থানীয় জেলেরা মাছ শিকার করেন। এই পদ্ধতিতে মাছ ধরতে যাওয়ার আগে ভোঁদড়কে পেট ভরে মাছ খাওয়ানো হয় তারপর নৌকায় বাঁধা জাল নদীতে ফেলে ভোদড় ছেড়ে দেয়া হয়। ভোদড় তার স্বভাবসুলভ আচরণে খাবার জন্য মাছ তাড়িয়ে নিয়ে যায়, আর মাছেগুলো জেলেদের জালে আটকা পড়ে। শিকারে পর জেলেদের ধরা মাছের একটা অংশ ভোঁদড়ের জন্য বরাদ্ধ রাখা থাকে। এ কারণে ভোঁদড় আর জেলেদের বিশ্বস্ততা বজায় থাকে। নড়াইল অঞ্চলের জেলেরা তাই ভোঁদড়কে অন্যান্য গৃহপালিত প্রাণীর মত লালনপালন করেন।

কিভাবে যাবেন

ঢাকা থেকে বাসে চড়ে পাটুরিয়া কিংবা মাওয়া হয়ে নড়াইল জেলায় যাওয়া যায়। নড়াইলের রুপগঞ্জ বাজার থেকে রিকশা নিয়ে গোয়ালবাড়ি পৌঁছে চিত্রা ও আফরা নদীর ত্রি মোহনায় ভোঁদড় দিয়ে মাছ ধরা দেখতে যেতে পারবেন।

কোথায় থাকবেন

নড়াইল জেলা ও যশোর-নড়াইল সড়কে বেশকিছু আবাসিক হোটেল ও আধুনিক মানের রিসোর্ট রয়েছে। এদের মধ্যে ডলফিন, সম্রাট, মর্ডান, অরুনিমা রিসোর্ট ও চিত্রা রিসোর্ট প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।

কোথায় খাবেন

নড়াইলে ফ্রেন্ডস ক্যাফে, মধুর ক্যান্টিন, সোনারগাঁও হোটেল এবং ফরহাদ ফুড ভিলজ সহ নড়াইলে বিভিন্ন মানের খাবার রেস্টুরেন্ট রয়েছে।

নড়াইল জেলার দর্শনীয় স্থান

নড়াইল জেলার অন্যান্য দর্শনীয় স্থানের মধে সুলতা্ন কমপ্লেক্স, চিত্রা রিসোর্ট, নিরিবিলি পিকনিক স্পট, অরুনিমা ইকো পার্ক, বাধাঘাট, বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ নূর মোহাম্মদ কমপ্লেক্স, তপনভাগ দিঘী উল্লেখযোগ্য।

ফিচার ইমেজ: ভ্রমণগুরু

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।