নবরত্ন মন্দির (Noborotno Mondir) সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল গ্রামে অবস্থিত একটি মধ্যযুগীয় প্রত্নতত্ত্ব নিদর্শন। ১৬৬৪ সালে নায়েবে দেওয়ান রামানাথ ভাদুরী দিনাজপুরের কান্তজীর মন্দির এর অনুকরণে নবরত্ন মন্দিরটি নির্মাণ করেন। নবরত্ন মন্দিরের কাছে কারুকার্যময় একটি শিব মন্দির ও একটি পূজা অর্চনার চন্ডি মন্দির রয়েছে। পোড়ামাটির নকশায় লতাপাতা, ফলমূল এবং দেবদেবীর চিত্র খচিত মন্দিরের ৯ টি চূড়ার জন্য নবরত্ন মন্দির হিসাবে পরিচিতি পায়। বর্গাকার ১৫.৪ মিটার আয়তনের মন্দিরের চারদিকে রয়েছে ইটসুরকির গাঁথুনির দেয়াল। মধ্যযুগীয় শিল্পকর্মে পরিপূর্ণ মন্দিরের পূর্ব দিকে প্রবেশ পথ রয়েছে, আর কুঠুরির উত্তর দিকে আছে সিঁড়ি। নবরত্ন মন্দিরের কেন্দ্রীয় উপাসনা কক্ষের উপরে চারিদিকে বারান্দা দেয়া আরও একটি কক্ষ আছে। এছাড়া নবরত্ন মন্দিরের পাশে অবস্থিত পুকুরকে ঘিরে নানান গল্পকথা প্রচলিত রয়েছে।

যাওয়ার উপায়

ঢাকা থেকে বগুড়াগামী যেকোন বাসে চড়ে হাটিকুমরুল নেমে ১ কিলোমিটার দূরের নবরত্ন মন্দির থেকে ঘুরে আসতে পারবেন। ঢাকার কল্যাণপুর ও গাবতলী বাস টার্মিনাল থেকে টি আর ট্রাভেলস, এস আর ট্রাভেলস, হানিফ এন্টারপ্রাইজ, শ্যামলী পরিবহন, শাহ সুলতান পরিবহন এবং বিআরটিসির এসি/নন-এসি বাস ৩০০ থেকে ৬০০ টাকায় বগুড়ার পথে যাত্রা করে।

অথবা বাসে বঙ্গবন্ধু সেতু পাড় হয়ে পশ্চিম সংযোগ সড়কের চৌরাস্তায় নেমে সিরাজগঞ্জ সড়কে এসে রিকশা বা ভ্যানে চড়ে ২ কিলোমিটার গেলেই হাটিকুমরুল। হাটিকুমরুল গ্রামে মাত্র ১ কিলোমিটার দূরত্বে রয়েছে নবরত্ন মন্দির।

কোথায় থাকবেন

হাটিকুমরুল গ্রামে রাতে থাকার কোন আবাসন ব্যবস্থা গড়ে উঠেনি। সিরাজগঞ্জ শহরের হোটেল আল হামরা (01745-629264, 0751-64411) এবং হোটেল অনিক (01721-719235, 0751-62442) এ ২০০ থেকে ৮০০ টাকায় বিভিন্ন মানের এসি/নন-এসি কক্ষে যাত্রি যাপন করতে পারবেন।

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।