বাংলাদেশের একমাত্র দ্বীপ জেলা ভোলায় নির্মাণ করা হয়েছে দক্ষিণাঞ্চলের সর্ববৃহৎ অত্যাধুনিক মসজিদ নিজাম হাসিনা মসজিদ (Nizam Hasina Mosque)। ভোলা শহরের উকিল পাড়া নামক স্থানে প্রায় দেড় একর জমির উপর দ্বিতল এই মসজিদটি স্থাপন করেছে নিজাম-হাসিনা ফাউন্ডেশন। দৃষ্টিনন্দন কারুকাজ সম্বলিত অপূর্ব এই নিজাম হাসিনা মসজিদ নির্মাণে বিভিন্ন রঙয়ের মার্বেল পাথর ব্যবহার করা হয়েছে। নিজাম হাসিনা মসজিদে রয়েছে পুরুষ ও নারীদের জন্য পৃথক অজুখানা এবং নামাজের আদায়ের স্থান। এই মসজিদে প্রায় দুই হাজার মুসল্লির একত্রে নামায আদায়ের সুযোগ রয়েছে। ২০১০ সালের জুন মাসে মসজিদের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করা হয় এবং ২০১৬ সালে ৩০ ডিসেম্বর রোজ শুক্রবার নিজাম হাসিনা মসজিদটি নিয়মিত নামায আদায়ের উদ্দেশ্যে উদ্বোধন করা হয়।

নিজাম হাসিনা মসজিদে ৬০ ফুট উচ্চতা বিশিষ্ট একটি গম্বুজ রয়েছে। আর মসজিদে স্থাপিত মিনারের উচ্চতা ১২০ ফুট। ক্যালিগ্রাফি, আকর্ষণীয় ফোয়ারা এবং সাজানো ফুলের বাগান মসজিদের সৌন্দর্যকে আরো বহুগুণ বাড়িয়ে তোলেছে।

যেভাবে যাবেন

ঢাকার সদরঘাট কিংবা চট্টগ্রামের লক্ষীপুর মঝু চৌধুরী হাট হতে লঞ্চে চড়ে ভোলার ইলিশা ফেরি ঘাট নেমে টমটমে যোগে আর মাত্র ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিলেই নিজাম হাসিনা মসজিদ পৌঁছাতে পারবেন।

এছাড়া ঢাকা হতে লঞ্চে বরিশাল সদরঘাটে নেমে সেখান থেকে ভোলাগামী লঞ্চে ভেদুরিয়া ঘাট পর্যন্ত এসে অটোতে চড়ে ভোলা সদরের উকিল পাড়া এলাকায় নির্মিত নিজাম হাসিনা মসজিদে যাতে পারবেন। ঢাকা হতে বরিশাল লঞ্চের ডেকের ভাড়া ১৫০ টাকা। আর বরিশাল হতে ভেদুরিয়া ঘাটা আসতে ভাড়া লাগবে জনপ্রতি ৮০ টাকা এবং ভেদুরিয়া থেকে অটো ভাড়া জনপ্রতি ৪০ টাকা।

কোথায় থাকবেন

ভোলা সদরে দি পাপিলন হোটেল, হোটেল বে আইল্যান্ড এবং ক্রিস্টাল ইন নামের আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্পন্ন আবাসিক হোটল রয়েছে।

ফিচার ইমেজ: Nurul Afsar Titu

ম্যাপে নিজাম হাসিনা মসজিদ

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।