কিশোরগঞ্জ জেলা শহরের বুক চিরে বয়ে চলা নরসুন্দা নদীকে কেন্দ্র করে নরসুন্দা লেকসিটি (Narashunda Lake City) গড়ে তোলা হয়েছে। কিশোরগঞ্জ জেলা শহরের প্রাণ, নানা উপাখ্যানের সাক্ষী এক সময়ের খরস্রোতা এই নদীকে নবজীবন প্রদান এবং পৌর নাগরিকদের জীবন মান বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে গৃহীত নরসুন্দা লেকসিটি প্রকল্প বাস্তবায়নের অংশ হিসাবে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে ৫টি দৃষ্টিন্দন সেতু ও ২টি ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণ করা হয়েছে। নদীর দুই পাড়ের সৌন্দর্য উপভোগ এবং হাঁটাচলা করার জন্য তৈরি করা হয়েছে সুপরিসর ওয়াকওয়ে।

এছাড়া গুরুদয়াল সরকারী কলেজের সামনে অবস্থিত পুকুর প্রাঙ্গণ, মুক্তমঞ্চ এবং ওয়াচ টাওয়ার সর্বদা মুখর থাকে বিনোদনপ্রেমী মানুষের পদচারণায়। ফলে মুক্তমঞ্চ ও পর্যবেক্ষণ টাওয়ার ঘিরে গড়ে উঠেছে বাহারি খাবারের দোকান ও টি স্টল। চিত্তবিনোদনের উদ্দেশ্যে আগতরা চাইলে গুরুদয়াল কলেজ মাঠে ঘোড়ার গাড়িতে চড়ে কিংবা নরসুন্দা নদীতে নৌকা ভ্রমণের মাধ্যমে আনন্দ উপভোগ করতে পারেন। সেই সাথে সুউচ্চ ওয়াচ টাওয়ারের চূড়ায় উঠে এক নজরে দেখে নিতে পারেন কিশোরগঞ্জ শহরের রূপ বৈচিত্র। এছাড়াও পৌরবাসীদের চিত্তবিনোদনে নতুন মাত্রা যোগ করতে গৌরাঙ্গবাজার সেতুর পশ্চিম দিকে একটি বিনোদন পার্ক নির্মাণ করা হচ্ছে।

কিভাবে যাবেন

কিশোরগঞ্জ জেলা সদরের হারুয়া এলাকায় আধুনিক সদর হাসপাতালে কাছে গুরুদয়াল কলেজের অবস্থান। কিশোরগঞ্জ পৌর শহরের যেকোন স্থান থেকে রিকশা বা ইজিবাইক ভাড়া নিয়ে গুরুদয়াল কলেজ প্রাঙ্গণে মুক্তমঞ্চে আসতে পারবেন।

ঢাকা থেকে ট্রেনে কিশোরগঞ্জ: কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে কিশোরগঞ্জ যাওয়ার ৩ টি আন্তঃনগর ট্রেন রয়েছে। ট্রেনগুলো সকাল ৭ টা ১৫ মিনিট, সকাল ১০ টা ৩০ মিনিট এবং সন্ধ্যা ৬ টা ৪৫ মিনিটে কিশোরগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। ট্রেনে কিশোরগঞ্জ যাওয়ার ক্ষেত্রে সকালের এগারোসিন্ধুর প্রভাতীতে চড়লে হাতে অনেক সময় পাবেন। ট্রেন ভাড়া শ্রেণী অনুযায়ী ১২৫-৩৪৫ টাকা এবং সময় লাগবে প্রায় ৪ ঘন্টা। কিশোরগঞ্জ রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে অটোরিকশা রিজার্ভ নিয়ে মুক্তমঞ্চ আসতে ১০০ থেকে ১২০ টাকা খরচ হবে। আর লোকালে খরচ হবে জনপ্রতি ১৫ টাকা।

ঢাকা থেকে বাসে কিশোরগঞ্জ: ঢাকার মহাখালী থেকে অনন্যা পরিবহণ, অনন্যা ক্লাসিক এবং গোলাপবাগ (সায়েদাবাদ) থেকে যাতায়াত, অনন্যা সুপার ইত্যাদি বাস ঢাকা-কিশোরগঞ্জ রুটে চলাচল করে। বাস ভাড়া .২৭০-৩৫০ টাকা। মহাখালী থেকে সময় লাগবে প্রায় সাড়ে ৩ ঘন্টা এবং গোলাপবাগ থেকে সময় লাগবে প্রায় ৪ ঘন্টা। কিশোরগঞ্জের বাস স্ট্যান্ড থেকে ২০ টাকা রিকশা ভাড়ায় সরাসরি মুক্তমঞ্চ যেতে পারবেন। এছাড়া বাস স্ট্যান্ড হতে লোকাল ইজিবাইকে জনপ্রতি ৫ টাকা ভাড়ায় গুরুদয়াল কলেজ সংলগ্ন বটতলা নামক স্থানে নামলেই নরসুন্দার তীরে গড়ে উঠা ওয়াচ টাওয়ার ও মুক্তমঞ্চ দেখতে পারবেন।

কোথায় খাবেন

কিশোরগঞ্জ শহরে গাংচিল, তাজ, স্টার ওয়ান, ধানসিঁড়ি, ইস্টিকুটুম, দারুচিনি, মাছরাঙ্গা ইত্যাদি রেস্টুরেন্টে পছন্দের খাবার খেতে পারবেন। মিষ্টি খেতে চাইলে একরামপুরের লক্ষী নারায়ণ মিষ্টান্ন ভান্ডার কিংবা গৌরাঙ্গবাজারের মদন গোপালে ঢু মারতে পারেন।

কোথায় থাকবেন

রাতে থাকার জন্য কিশোরগঞ্জ শহরের স্টেশন রোডে হোটেল শেরাটন, রিভার ভিউ, গাংচিল, নিরালা, উজান ভাটি, ক্যাসেল সালাম সহ বেশকিছু মানসম্মত আবাসিক হোটেল রয়েছে। এছাড়া অনুমতি সাপেক্ষে জেলা সদরের সরকারি ডাকবাংলোতে থাকতে পারবেন।

কিশোরগঞ্জ জেলার অন্যান্য দর্শনীয় স্থান

কিশোরগঞ্জ জেলার উল্লেখযোগ্য ভ্রমণ স্থানের মধ্যে আছে পাগলা মসজিদ, শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দান, কবি চন্দ্রাবতীর মন্দির, গাঙ্গাটিয়া জমিদার বাড়ি, ঈশা খাঁর জঙ্গলবাড়ি দূর্গ, বালিখলা, মিঠামইন হাওর নিকলী হাওর ইত্যাদি।

ফিচার ইমেজ: মাহফুজ মেজবাহ উদ্দিন

ভ্রমণ সংক্রান্ত যে কোন তথ্য ও আপডেট জানতে ফলো করুন আমাদের ফেসবুক পেইজ এবং জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে

ম্যাপে নরসুন্দা লেকসিটি

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।