বান্দরবান জেলার আলীকদম থানার মিরিঞ্জা রেঞ্জে অবস্থিত একটি পাহাড়ের নাম মারায়ন তং (Marayan Dong)। এই পাহাড় আরও কয়েকটি নামে পরিচিত যেমন; মারায়ান তং, মারায়ং তং, মেরাই থং জাদি, মারাইং ডং ইত্যাদি। প্রায় ১৬৪০ ফুট উচ্চতার এই পাহাড়ের চূড়ায় আছে একটি বৌদ্ধ উপাসনালয়। খোলা প্রকৃতির মাঝে বৌদ্ধের বিশাল মূর্তি এই জায়গাটিকে আরও গাম্ভির্যময় করে তোলেছে। দিগন্তজোড়া পাহাড় আর নিচে সাপের মতো বয়ে চলা মাতামুহুরী নদী, ফসলের ক্ষেত সবকিছু মিলিয়ে এ যেন এক কল্পনার রাজ্য।

ত্রিপুরা, মারমা, মুরং সহ বেশিকিছু আদিবাসীর বসবাস এই মারায়ন তং পাহাড়ে। পাহাড়ের ভাঁজে ভাঁজে থাকা আদিবাসী পাড়াগুলো বিশেষ বৈচিত্রতা যুক্ত করেছে আলীকদমের এই পাহাড়ি সৌন্দর্যে। পাহাড়ের ওপর নির্ভরশীল মানুষের জীবনযাত্রা এবং নিখাদ প্রকৃতি দুচোখ ভরিয়ে দেয় এখানে আগত পর্যটকদের।

কিভাবে যাবেন

রাজধানী ঢাকা হতে সরাসরি আলীকদমগামী বাস সার্ভিস রয়েছে। আলীকদম বাসস্ট্যান্ড পৌঁছার আগেই আবাসিক নামক জায়গায় আপনাকে নেমে যেতে হবে। সেখান থেকে কাউকে জিজ্ঞেস করলেই মারায়ং তং যাবার রাস্তা দেখিয়ে দিবে। সেখান থেকে হেটে মারায়ং তং পাহাড় চূড়ায় পৌঁছতে ২ ঘন্টার মত সময় লাগবে। তবে কারও কারও সময় আরও বেশি লাগতে পারে।

সরাসরি আলিকদমের বাস ছাড়াও কক্সবাজার গামী কোন বাসে করে কক্সবাজারের চকোরিয়ায় নেমে সেখান থেকে লোকাল বাস বা জীপে করে আলীকদম যাওয়া যায়, লোকাল ভাড়া ৭০-৮০ টাকা। চাইলে জীপ রিসার্ভ নিয়ে আলীকদম যেতে পারবেন। জীপ রিসার্ভ করতে ভাড়া লাগবে প্রায় ১০০০-১২০০ টাকা। এক জীপে ১০-১২ জন যাওয়া যায়।

কোথায় থাকবেন

মূলত মারায়ং তং যারা ভ্রমণ করতে যায় তারা ক্যাম্পিং করে সেখানে থাকার জন্যে ভ্রমণে যায়। তবে যদি আপনার আলীকদমে থাকার প্রয়োজন হয়ে তাহলে উপজেলা রোডের “দ্যা দামতুয়া ইন” হোটেলে অথবা জেলা পরিষদের ডাক বাংলোতে থাকতে পারবেন। এছাড়া পান বাজারে সাধারণ মানের একটি বোর্ডিং আছে।

প্রয়োজনীয় পরামর্শ

  • মারায়াং তং পাহাড়ে যাওয়ার সময় পানি, স্যালাইন, গ্লুকোজ, শুকনো খাবার, ফ্রাস্ট এইড বক্স ও দরকারী ওষুধপত্র সাথে রাখুন।
  • ক্যাম্পিং করতে চাইলে ক্যাম্পিংয়ের প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম তাঁবু, স্লিপিং ব্যাগ, হালকা চাদর ইত্যাদি সঙ্গে নিন। সেই সাথে রান্নার উপকরণ নিতে ভুল করবেন না।
  • রাত্রিযাপন করতে চাইলে স্থানীয় প্রশাসনের সাথে কথা বলে নিন এবং তাদের পরামর্শ পালন করুন।
  • প্রয়োজনে স্থানীয় কাউকে গাইড হিসেবে নিতে পারবেন।
  • পাহাড়ে উঠার সময় বেশি লাগলেও নেমে আসতে ১ ঘন্টার মত সময় লাগবে।
  • প্রয়োজনে আদিবাসী পাড়ার হেডম্যানদের ফোন নম্বর জেনে নিন।
  • অনুমতি ছাড়া আদিবাসীদের ছবি তুলবেন না।
  • আদিবাসীদের সাথে ভাল ব্যবহার করুন এবং তাদের কোন ক্ষতি করবেন না।
  • সাথে নিয়ে যাওয়া শুকনো খাবার চিপস, বিস্কুট ইত্যাদির প্যাকেট ফেলে পাহাড় নোংরা করবেন না।
  • শ্বাসকষ্ট কিংবা হার্টের কোন অসুখ থাকলে এই ভ্রমণ এড়িয়ে যান।

ফিচার ইমেজ: Da Food Addicted

ম্যাপে মারায়ন তং

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।