করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে আগামী কিছুদিন কোথাও ভ্রমণ থেকে বিরত থাকুন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন ও সচেতন থাকুন। করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত সকল তথ্য জানতে এখানে ক্লিক করুন

জামালপুর জেলার মেলান্দহ উপজেলার মালঞ্চ শিশু ও চক্ষু হাসপাতালের কমপ্লেক্সে কারুকার্য মণ্ডিত দৃষ্টিনন্দন মালঞ্চ মসজিদ (Maloncho Jame Mosque) অবস্থিত। সাবেক সচিব ও ইউনাইটেড ট্রাস্টের সহযোগিতায় মাজার, মসজিদ, কামিল মাদ্রাসা, মহিলা মাদ্রাসা, হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও ইসলামিক মিশনের সমন্বয়ে প্রাকৃতিক মনোরম পরিবেশে দৃষ্টিনন্দন এই মালঞ্চ কমপ্লেক্সটি নির্মাণ করা হয়েছে। সবুজ গাছ-গাছালীতে ঘেরা এক গম্বুজ বিশিষ্ট মালঞ্চ মসজিদের সামনে একটি স্বচ্ছ পানির দীঘি রয়েছে। নান্দ্যনিক সৌন্দর্যের জন্য বর্তমানে মালঞ্চ কমপ্লেক্সটি জামালপুর জেলার একটি অন্যতম দর্শনীয় স্থানে পরিণত হয়েছে।

কিভাবে যাবেন

ঢাকা থেকে সড়ক ও রেলপথে জামালপুর যাওয়া যায়। তবে ঢাকা থেকে ট্রেনে জামালপুর যাওয়া বেশী সুবিধাজনক। কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে যমুনা, তিস্তা, ব্রহ্মপুত্র ও অগ্নিবিনা এক্সপ্রেস ট্রেনে জামালপুর যাওয়া যায়। আর মহাখালী বাস স্ট্যান্ড থেকে মহানগর, এনা কিংবা রাজিব পরিবহণের বাসে জামালপুর যেতে পারবেন। জামালপুর জেলা শহর থেকে বাস বা সিএনজিতে চড়ে ১০ কিলোমিটার দূরে মালঞ্চ বাজারের কাছে অবস্থিত মালঞ্চ কমপ্লেক্সে যাওয়া যায়।

কোথায় থাকবেন

জামালপুরের ষ্টেশন রোড ও গেইট পাড়ে অধিকাংশ আবাসিক হোটেল রয়েছে। এদের মধ্যে হোটেল আল সামাদ, খান আবাসিক, হোটেল রাশেদ, হোটেল নিলয়, হোটেল রাসেল, হোটেল আল সিরাজ, হোটেল শাহ জামাল ও হোটেল সানোয়ার অন্যতম।

কোথায় খাবেন

মেলান্দহ উপজেলায় হোটেল মদিনা, নিরিবিলি হোটেল ও আড্ডা ক্যাফে নামের রেস্তোরাঁ আছে। এছাড়া জামালপুর শহরে হোটেল শ্যামল বাংলা, মেক্সিকান হট সাবওয়ে, এফএইচটি, তাজ ক্যাফে,  জেএফসি রেস্টুরেন্টের মতো বেশ কিছু বাঙ্গালি, ফাস্টফুড ও চাইনিজ রেস্টুরেন্ট রয়েছে।

জামালপুরের দর্শনীয় স্থান

জামালপুরের অন্যান্য দর্শনীয় স্থানের শাহ জামালের মাজার, দয়াময়ী মন্দির, লুইস ভিলেজ এন্ড পার্ক ও লাউচাপড়া পিকনিক স্পট উল্লেখযোগ্য।

ফিচার ইমেজ: মোঃ নাসিম

ম্যাপে মালঞ্চ মসজিদ

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।