কক্সবাজার জেলার ফতেখারকুল ইউনিয়নে রামু চৌমুহনী বাসস্ট্যান্ড থেকে ১ কিলোমিটার দূরে বাকখালী নদীর তীরে লামাপাড়া খিয়াং (Lamapara Khiang) অবস্থিত। উনিশ শতকের শুরুর রামুর থু অং গিয়াও চৌধুরী লামাপাড়া খিয়াং নির্মাণ করেন। লামাপাড়া খিয়াংয়ে মার্বেল পাথরের মঞ্চের উপর স্থাপিত পিতলের বুদ্ধ মূর্তি আকারের দিক দিয়ে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহৎ বুদ্ধ মূর্তি হিসাবে স্বীকৃত। খিয়াংয়ের স্থাপত্যশৈলী আগত দর্শনার্থীদের মুগ্ধ করে। কক্সবাজার জেলার প্রায় সকল থানায় এই ধরনের খিয়াং রয়েছে। এদের মধ্যে কেবল মাত্র রামুতে প্রায় ২৩টি খিয়াং রয়েছে।

কিভাবে যাবেন

ঢাকা থেকে সড়ক, রেল এবং আকাশপথে কক্সবাজার যাওয়া যায়। ঢাকার বিভিন্ন স্থান হতে সৌদিয়া, এস আলম মার্সিডিজ বেঞ্জ, গ্রিন লাইন, হানিফ এন্টারপ্রাইজ, শ্যামলী পরিবহন, সোহাগ পরিবহন, এস.আলম পরিবহন, মডার্ন লাইন ইত্যাদি বাস কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। শ্রেণী ভেদে এসব বাসের সীট প্রতি ভাড়া ৯০০ টাকা থেকে ২০০০ টাকা।

ঢাকার কমলাপুর কিংবা বিমানবন্দর রেলস্টেশান হতে সোনার বাংলা, সুবর্ন এক্সপ্রেস, তূর্ণা-নিশীথা, মহানগর প্রভাতী/গোধূলী ট্রেনে চট্টগ্রাম পৌঁছে নতুন ব্রিজ এলাকা বা দামপাড়া বাস স্ট্যান্ড থেকে এস আলম, হানিফ, ইউনিক ইত্যাদি বিভিন্ন পরিবহণের বাসে কক্সবাজার যেতে পাবেন। বাস ভেদে ভাড়া ২৮০ থেকে ৫৫০ টাকা।

এছাড়া বাংলাদেশ বিমান, নভোএয়ার, ইউএস বাংলা সহ বেশকিছু বিমান ঢাকা থেকে সরাসরি কক্সবাজার ফ্লাইট পরিচালনা করে থাকে।

কক্সবাজারে হতে বিভিন্ন স্থানীয় যানবাহনে চড়ে লামাপাড়া খিয়াং যেতে পারবেন। রামু পৌরসভার ফতেখারকুল ইউনিয়নে অবস্থিত রামু চৌমুহনী বাসস্ট্যান্ড হতে ১ কিলোমিটার দক্ষিণে গেলে লামার পাড়া বৌদ্ধ বিহার পৌঁছে যাবেন।

কোথায় থাকবেন

কক্সবাজারে বিভিন্ন মানের প্রায় পাঁচশতাধিক হোটেল, মোটেল ও কটেজ আছে। এদের মধ্যে মারমেইড বিচ রিসোর্ট, সায়মন বিচ রিসোর্ট, ওশেন প্যারাডাইজ, লং বীচ, কক্স টুডে, হেরিটেজ, সী প্যালেস, সী গাল, কোরাল রীফ, নিটোল রিসোর্ট, আইল্যান্ডিয়া, বীচ ভিউ, সী ক্রাউন, ইউনি রিসোর্ট, উর্মি গেস্ট হাউজ, কোরাল রীফ, ইকরা বিচ রিসোর্ট, অভিসার, মিডিয়া ইন, কল্লোল, হানিমুন রিসোর্ট, নীলিমা রিসোর্ট উল্লেখ্য।

খাওয়া দাওয়া

কক্সবাজারে নানা মানের রেস্টুরেন্টের মধ্য থেকে আপনার পছন্দমত জায়গায় খেতে পারবেন। প্রায় প্রতিটি আবাসিক হোটেলে খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। সুলভ মূল্যে খাবার খেতে চাইলে চলে যান রোদেলা, ঝাউবন, ধানসিঁড়ি, পৌষি, নিরিবিলি, আল বোগদাদিয়া ইত্যাদি রেস্তোরায়।

ম্যাপে লামাপাড়া খিয়াং

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।