প্রায় একশত বছর আগে প্রতিষ্ঠিত কীর্তিপাশা জমিদার বাড়ি (Kirtipasha Zamindar Bari) ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলার কীর্তিপাশা ইউনিয়নে অবস্থিত। ঐতিহাসিক এই জমিদার বাড়িটি ঝালকাঠি জেলা সদর থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। বর্তমানে জমিদার বাড়ির একটি অংশে রয়েছে প্রসন্ন কুমার মাধ্যমিক বিদ্যালয়। নাটমঞ্চ ও হলরুমে কমলিকন্দ নবীন চন্দ্র বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়। আর মূল জমিদার বাড়ি ও দূর্গামন্দির লতা-পাতা, জঙ্গলে জরাজীর্ণ হয়ে রয়েছে।

বিক্রমপুর জমিদারের বংশধরের কিছু অংশ প্রায় ১৯ শতকের শেষ সময়ে কীর্ত্তিপাশা জমিদার বাড়িটি প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯ শতকের প্রথম দিকে বিক্রমপুর জমিদার বংশের রাজা রাম সেনগুপ্ত এই কীর্ত্তিপাশা গ্রামে আসেন। এখানে তিনি তার দুই ছেলের জন্য দুইটি বাড়ি নির্মাণ করেন। বড় ছেলের জন্য পূর্ব বাড়ি যা ছিল ১০ আনা বড় হিস্যা জমিদার বাড়ি নামে পরিচিত। আর ছোট ছেলের জন্য পূর্ব বাড়ি যা ৬ আনা ছোট হিস্যা জমিদার বাড়ি নামে পরিচিত ছিল। ছোট ছেলের জমিদার বাড়ি অনেক আগেই ধ্বংস হয়ে গেছে। আর বড় ছেলের জমিদার বাড়ির কিছু অংশ টিকে আছে। এই জমিদার বাড়ির জমিদারপুত্রকে বিষ খাইয়ে হত্যা করা হয়। এবং তার স্ত্রীও তার সাথে মৃত্যুবরণ করেন। পরে তাদেরকে একসাথে সমাধি করা হয়। এখানে এখনো একটি নাট মন্দির, হল ঘর, ছোট ও বড় মন্দির আছে। এই জমিদার বংশের দুজন বিখ্যাত ব্যক্তি হচ্ছেন রোহিনী রায় চৌধুরী ও তপন রায় চৌধুরী।

কিভাবে যাবেন

ঢাকা থেকে ঝালকাঠি
ঢাকা থেকে ঝালকাঠি বাসে বা লঞ্চে করে যাওয়া যায়। বিভিন্ন পরিবহণের এসি ও ননএসি বাস ঢাকা থেকে ঝালকাঠি সরাসরি চলাচল করে। ঢাকা হতে ঝালকাঠির নন এসি বাস ভাড়া হানিফ ৫৫০ টাকা, সাকুরা পরিবহন ৫০০ টাকা, সার্বিক পরিবহন ৫০০ টাকা এবং এসি বাস গুলোর ভাড়া সোনারতরী পরিবহন ৭০০ টাকা, সার্বিক পরিবহন ৮০০ টাকা ও সুরভী পরিবহন ৭৫০ টাকা।

নদী পথে ঢাকা সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল থেকে ঝালকাঠির উদ্দেশ্যে যে সব লঞ্চ ছেড়ে যায় তাঁর যে কোন একটিতে করে যেতে পারবেন ঝালকাঠি। যেসব লঞ্চ ছেড়ে যায় সেগুলো হলো এম ভি টিপু-০, এম ভি টিপু-১ সুরভী-৭, সুরভী-৮, পারাবত-২, পারাবত-৯, পারাবত-১১। এছাড়া চাইলে বরিশাল গিয়ে সেখান থেকেও ঝালকাঠি যেতে পারবেন।

ঝালকাঠি থেকে কীর্তিপাশা
ঝালকাঠি থেকে রিক্সা বা অটোরিক্সা দিয়ে ১০/২০ মিনিট লাগবে কীর্তিপাশা বাজার যেতে। বাজার থেকে ৩-৪ মিনিট পায়ে হেঁটেই কীর্তিপাশা জমিদার বাড়ী যাওয়া যায়।

কোথায় থাকবেন

থাকার জন্যে জেলা শহরে মোটামুটি মানের বেশ কয়েকটি আবাসিক হোটেল আছে, তারমধ্যে ধানিসিড়ি রেস্ট হাউজ বা ডালিয়ান থাই চাইনিজ হোটেল এ থাকতে পারেন।

ঝালকাঠির আরও কিছু দর্শনীয় জায়গা

ঝালকাঠি জেলার দর্শনীয় স্থানের মধ্যে উল্লেখযোগ্য; সুজাবাদ কেল্লা, ঘোষাল রাজবাড়ী, পুরাতন পৌরসভা ভবন, মাদাবর মসজিদ, সুরিচোরা জামে মসজিদ, গাবখান সেতু, বিনয়কাঠি ইত্যাদি।

ম্যাপে কীর্তিপাশা জমিদার বাড়ি

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।