ঢাকা জেলার নবাবগঞ্জের খেলারাম দাতাকে নিয়ে এই অঞ্চলে বেশকিছু লোককথা প্রচলিত আছে। জানা যায়, খেলারাম দাতা ছিলেন ডাকাত সর্দার। পাশাপাশি বিখ্যাত দানশীল হিসাবেও তার সুনাম ছিল সর্বত্র। গরিব মানুষের সমস্যায় তিনি দ্বিধাহীন ভাবে সাহায্য করতেন।

খেলারাম দাতার বাড়ি থেকে ইছামতি নদীর অবধি সুড়ঙ্গ পথ ছিল। আর এই সুড়ঙ্গ পথে ডাকাতি করে আনা সম্পদ বাড়িতে নিয়ে আসতেন বলে প্রচলিত আছে। খেলারাম দাতার বাড়িটিকে সংস্কার করে সুড়ঙ্গে প্রবেশ নিষেধ করে দেয়া হয়েছে। ফলে বর্তমানে বাড়ি ভেতরে প্রবেশ করা যায় না, খেলারাম দাতার বাড়ি (Khelaram Data House) ও মন্দির (Khelaram Data Temple) কেবলমাত্র বাইরে থেকে ঘুরে দেখা যায়।

খেলারাম দাতার বাড়ির পাশে একটি বিশাল পুকুর রয়েছে। প্রচলিত আছে, খেলারাম দাতা তাঁর মাকে বাঁচাতে এই পুকুরে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন এরপর তিনি আর উঠে আসেননি।

কিভাবে যাবেন

ঢাকার গুলিস্থান থেকে বাসে সরাসরি বান্দুরা যাওয়া যায়।.অথবা ঢাকার বাবুবাজার ব্রিজ অথবা শহীদ বুদ্ধিজীবী সেতু (৩য় বুড়িগঙ্গা সেতু) দিয়ে দোহার এসে নবাবগঞ্জের কলাকোপা এসে কলাকোপা থেকে বান্দুরার দিকে যাওয়ার রাস্তা ধরতে কিছুদূর গেলেই খেলারাম দাতার বাড়ি পৌঁছে যাবেন।

কোথায় থাকবেন

রাজধানী ঢাকার কাছে অবস্থানের কারণে দিনে গিয়ে দিনেই ফিরে আসা যায়।

অন্যান্য দর্শনীয় স্থান

খেলারাম দাতার বাড়ির কাছে কোকিলপেয়ারী জমিদার বাড়ি, বৌদ্ধ মন্দির, শ্রীলোকনাথ সাহা বাড়ি, কলাকোপা আনসার ক্যাম্প, উকিল বাড়ি, দাস বাড়ি, আদনান প্যালেস এবং ইছামতী নদীর অবস্থান।

ফিচার ইমেজ: ফারদিন

ভ্রমণ সংক্রান্ত যে কোন তথ্য ও আপডেট জানতে ফলো করুন আমাদের ফেসবুক পেইজ এবং জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে

ম্যাপে খেলারাম দাতার বাড়ি

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।