হাতিরঝিল (Hatirjhil) রাজধানী ঢাকার একটি এলাকা, যা নগরবাসীর বিনোদনের জন্য মনোরম এক বিনোদন কেন্দ্র হিসাবে বেশ সুনাম অর্জন করেছে। হাতিরঝিল পরিবেশ ও নান্দনিকতায় খুব সহজেই নগরবাসীর মনে জায়গা করে নিয়েছে। হাতিরঝিলে রয়েছে দৃষ্টিনন্দন সেতু, চমৎকার শ্বেতশুভ্র সিঁড়ি এবং নজরকাড়া ফোয়ারা। এখানে ঝিলের জলে পালতোলা নৌকায় করে নৌবিহার করার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এছাড়াও হাতিরঝিলকে ঘিরে বিভিন্ন উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহন করা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, শিশুপার্ক, বিশ্বমানের থিয়েটার এবং শরীর চর্চা কেন্দ্র।

হাতিরঝিল নামকরনের ইতিহাস

ইতিহাস থেকে জানা যায়, ঢাকার পিলখানা থেকে বেগুনবাড়ি ঝিলে যেসব সড়ক দিয়ে হাতি যেত পরবর্তীতে সে সব এলাকার সঙ্গে হাতি নামটি যুক্ত করা হয়েছে। যেমন এলিফ্যান্ট রোড, হাতিরপুল। আর হাতি গোসল করানোর জন্য এই ঝিলের নাম হয় হাতিরঝিল।

হাতিরঝিলে নৌকা ভ্রমণ

হাতিরঝিলের টলটলে পানিতে চালু হয়েছে যাত্রীবাহী ওয়াটারবাস। একদিকে এটি দিচ্ছে মনোরম ভ্রমণের অভিজ্ঞতা, অন্যদিকে সহজে গুলশান থেকে কাওরান বাজার যাওয়া যায়। বর্তমানে ৫ টি ওয়াটারবাসের প্রতিটিতে ৪৫ জন যাত্রী ধারণ ক্ষমতা রয়েছে।

হাতিরঝিলের চক্রাকার বাস সার্ভিস

হাতিরঝিলে চালু করা হয়েছে চক্রাকার বাস সার্ভিস ৩২ থেকে ৪৬ আসনের বাসএর ভেতরে যাত্রীরা মুখোমুখি বসতে পারে। বাসটি কাওরান বাজারের এফডিসি থেকে যাত্রা শুরু করে রামপুরা, বনশ্রী হয়ে শুরুর স্থানেই শেষ হয়।
চক্রাকার বাস সার্ভিসে পুরো হাতিরঝিল ঘুরে আসতে মাত্র ৩০ টাকা লাগে।

মিউজিক্যাল ড্যান্সিং ফাউন্টেইন

হাতিরঝিলের শোভা বর্ধনে স্থাপন করা হয়েছে রঙ-বেরঙের আলোর পানির ফোয়ারা বা মিউজিক্যাল ড্যান্সিং ফাউন্টেইন। মিউজিকের তালে তাল মিলিয়ে এসব ফোয়ারাগুলো নিয়ন্ত্রিত হয় আর এর সাথে আছে চোখ ধাঁধানো আলোর ঝলকানি। মিউজিক্যাল ড্যান্সিং ফাউন্টেইন মাঝে মধ্যে সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টা এবং রাত সাড়ে ৯ টায় ১৫ মিনিটের জন্য চালু করা হয়।

কিভাবে হাতিঝিল আসবেন

ঢাকার যে কোন প্রান্ত থেকে বাস কিংবা সিএনজিতে হাতিরঝিল আসতে পারবেন।

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।