সিলেট বিভাগের মৌলভিবাজার জেলা সদর, শ্রীমঙ্গল ও হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল উপজেলা জুড়ে বিস্তৃত একটি বৃহদাকার জলাভূমির নাম হাইল হাওর (Hail Haor)। ১৪ টি বিল ঘেরা হাইল হাওরের সর্বমোট আয়তন প্রায় ১০ হাজার হেক্টর। প্রচুর লতা ও গুল্মজাতীয় উদ্ভিদ থাকার কারণে স্থানীয়দের কাছে এটি লতাপাতার হাওর নামেও পরিচিত।

হাওরের চিরায়ত প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, নীল আকাশ ও পানির মিতালী যেন শিল্পীর তুলিতে আঁকা ছবির বাস্তব রূপ। সেকারণে হাওড়ের বুকে প্রকৃতিকে উপভোগ করতে সারাদেশের ভ্রমণকারীরা এই ভূস্বর্গে ছুটে আসেন। হাইল হাওরের অপরূপ সৌন্দর্যের পাশাপাশি জীববৈচিত্রেরও কোন ঘাটতি নেই। এই হাওরে প্রায় ৯৮ প্রজাতির মাছ ও প্রায় ১৬০ প্রজাতির পাখির বিচরণ লক্ষ করা যায়।

হাইল হাওর ভ্রমণের উপযুক্ত সময়: সাধারণত বর্ষাকাল হাওরাঞ্চল ভ্রমণের সবচেয়ে উপযুক্ত সময়। তবে যদি নানা প্রজাতির হাজারো পাখির কলকাকলিতে মুখর হতে চান তাহলে নভেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে হাইল হাওর ভ্রমণ করতে পারেন।

যাওয়ার উপায়

ঢাকার ফকিরাপুল কিংবা সায়দাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে হানিফ, শ্যামলী, এস আলম, এনা পরিবহণের সিলেটগামী বাস শ্রীমঙ্গল পৌঁছাতে পারবেন। এছাড়া কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে পারাবত, জয়ন্তিকা, উপবন প্রভৃতি আন্তঃনগর ট্রেনে চড়েও শ্রীমঙ্গল আসা যায়।

শ্রীমঙ্গল-মৌলভীবাজার সড়কে অবস্থিত কালাপুর বাজার হয়ে বরুনা-হাজীপুর পাকা রাস্তা ধরে হাজীপুর বাজারে চলে আসুন। যদিও স্থানীয়দের কাছে এই বাজারটি ঘাটেরবাজার নামে পরিচিত। ঘাটেরবাজার থেকে যেকোন স্থানীয় যানবাহন কিংবা পায়ে হেঁটে মাত্র ৪ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত হাইল হাওর পৌঁছাতে পারবেন।

কোথায় খাবেন

হাওর এলাকার মানুষদের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় খরচ দিয়ে অথবা তাদের খাবার শেয়ার করে খেতে পারবেন। প্রয়োজনে বিস্কুট, পাউরুটির মত শুকনো খাবার কিনে নিয়ে যেতে পারেন।

কোথায় থাকবেন

হাওর এলাকায় অবস্থিত বিল ইজারাদারদের দোচালা কুটিরগুলোয় ৪/৫ জন অনায়াসেই থাকা যায়। তবে এর জন্য অবশ্যই বিল মালিকের অনুমতি নিতে হবে। হাওরের রাতের সৌন্দর্য উপভোগের জন্য বিল এলাকায় তাঁবুতে রাত্রিযাপন করতে পারেন। হাইল হাওরের কাছেই শ্রীমঙ্গলের অবস্থান। আর শ্রীমঙ্গলে বিভিন্ন মানের আবাসিক হোটেল ও রিসোর্ট রয়েছে। যার মধ্যে পাঁচ তারকা হোটেল গ্র্যাণ্ড সুলতান, রেইন ফরেস্ট রিসোর্ট, হোটেল প্লাজা, টি টাউন রেস্ট হাউজ, হোটেল প্লাজা ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

হাইল হাওর ভ্রমণ পরামর্শ

হাইল হাওর ভ্রমণে সুবিধার্থে হাজীপুর বাজারে গাইড পাওয়া যায়। যদিও এখানে গাইডের প্রয়োজন নেই তবু চাইলে গাইডের সাহায্য নিয়ে সহজে হাইল হাওর ও বাইক্কা বিল ঘুরে দেখতে পারবেন।

ফিচার ইমেজ: সাব্বির হোসেন

ম্যাপে হাইল হাওর

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।