ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ পৌরসভা কার্যালয়ের সামনে প্রায় ১০ একর জায়গা জুড়ে গড়ে তোলা হয়েছে দৃষ্টিনন্দন ফানসিটি শিশু পার্ক (Funcity Amusement Park)। সকল বয়সের মানুষের চিত্তবিনোদনের উদ্দেশ্যে নির্মিত প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের আধার এই পার্কটি অল্প সময়ের মধ্যে ঠাকুরগাঁও জেলার অন্যতম পিকনিক স্পটে পরিণত হয়েছে। ফানসিটি শিশু পার্কের চমৎকার স্থাপত্য শৈলী এবং বিভিন্ন আকর্ষণীয় রাইড আগত দর্শনার্থীদের বিনোদিত করে।

ফানসিটি শিশু পার্কে আছে বিভিন্ন ঐতিহাসিক ঘটনাবলির নিদর্শন, সাম্পান নৌকা, টয় ট্রেন, মিউজিক চেয়ার, মোটরকার, ভিডিও গেমস, দোলনা, দৃষ্টিনন্দন ব্রিজ, আম ও লিচুর বাগান এবং নিজস্ব কার পার্কিং ব্যবস্থা। আর পার্কের প্রতিটি দেওয়ালে অঙ্কিত রয়েছে বিভিন্ন বরেণ্য কবি-সাহিত্যিক এবং বিজ্ঞানীদের ছবি।

ফানসিটি শিশু পার্কের প্রবেশ ফি জনপ্রতি ২০ টাকা এবং প্রতিটি রাইড উপভোগ করতে ১০ টাকা করে ব্যয় করতে হয়। পিকনিকের জন্য আগত মিনিবাসের প্রবেশ ফি ৫০০ টাকা এবং মাইক্রো বাসের প্রবেশ ফি ৩০০ টাকা।

যোগাযোগ
মোবাইল: 01712-061076

কিভাবে যাবেন

ফানসিটি শিশু পার্কটি পীরগঞ্জ উপজেলা সদরের প্রাণকেন্দ্র পীরগঞ্জ-বীরগঞ্জ রাস্তার উত্তর পার্শ্বে (পুরাতন আরডিআরএস মোড়) অবস্থিত। ঠাকুরগাঁও, বীরগঞ্জ এবং দিনাজপুর থেকে সরাসরি সড়ক পথে মিনিবাস বা মাইক্রোতে চড়ে পার্কে যাওয়া যায়।

এছাড়া ঠাকুরগাঁও থেকে বাস বা সিএনজিযোগে রাণীশংকৈল বাস স্ট্যান্ড এসে সেখান থেকেও সড়ক পথে পার্কে যেতে পারবেন।

ঢাকা থেকে ঠাকুরগাঁও
ঢাকা থেকে সড়ক ও রেলপথে ঠাকুরগাঁও আসা যায়। সড়ক পথে ঢাকা থেকে ঠাকুরগাঁও এর পথে বেশকিছু বাস সার্ভিস চলাচল করে তাদের মধ্যে কর্ণফুলী পরিবহন (01674-805164), হানিফ এন্টারপ্রাইজ, নাবিল পরিবহন, বাবলু এন্টারপ্রাইজ এবং কেয়া পরিবহন অন্যতম। কর্ণফুলী পরিবহনের জনপ্রতি টিকেটের ভাড়া ৫০০ টাকা।

এছাড়া ঢাকা-লালমনিরহাট ও ঠাকুরগাঁও রুটে লালমনি আন্ত:নগর ট্রেন রবিবার ব্যতীত সাপ্তাহের অন্য ৬ দিন ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট থেকে রাত ১০ টায় ঠাকুরগাঁও এর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। ঠাকুরগাঁও যেতে ট্রেনের টিকেট কাটতে শ্রেণীভেদে ৪০০ থেকে ৯৫০ টাকা লাগে।

কোথায় থাকবেন

ঠাকুরগাঁও-এ বেশকিছু সরকারি ডাকবাংলো বা রেস্ট হাউস রয়েছে। কতৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে এসব রেস্ট হাউসে রাত্রিযাপন করতে পারবেন। আবাসিক হোটেলের মধ্যে হোটেল সালাম ইন্টার ন্যাশনাল, প্রাইম ইন্টারন্যাশনাল, হোটেল শাহ্ জালাল, হোটেল সাদেক উল্লেখযোগ্য।

কোথায় খাবেন

প্রাত্যহিক খাবারের চাহিদা পূরণের জন্য এখানে সাধারণ ও মধ্যম মানের হোটেল-রেস্তোরাঁ পাবেন। তবে আমের সিজনে ঠাকুরগাঁও গেলে অবশ্যই এখানকার বিখ্যাত সূর্যপুরী আম খেয়ে আসবেন।

ফিচার ইমেজ: Ashabbin Raihan

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।