দয়াময়ী মন্দির (Doyamoyee Temple) জামালপুর জেলা শহরের জিরো পয়েন্টে অবস্থিত একটি ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা। ১৬৯৮ খ্রিস্টাব্দে নবাব মুর্শিদকুলি খাঁর আমলে শ্রীকৃষ্ণ রায় চৌধুরী এই মন্দিরটি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রায় ৬৫ শতাংশ জমির উপর নির্মিত দয়াময়ী মন্দিরে আলাদাভাবে শিব, কালি, নাটমন্দির এবং মনসা দেবীর মন্দির স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া দয়াময়ী মন্দিরে শতবর্ষ পুরনো কারুকার্য খচিত বিভিন্ন দৃষ্টিনন্দন চিত্রকর্ম রয়েছে।

প্রায় ৩২১ বছরের পুরনো দয়াময়ী মন্দিরে প্রতিদিনই বিভিন্ন পূজা অর্চণা আয়োজন করা হয়ে থাকে এবং প্রতি বছর অষ্টমী মেলায় আগত হিন্দুধর্মালম্বীরা বিভিন্ন দেবতার উদ্দেশ্যে মান্নত করে থাকেন। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা পর্যটকদের সুবিধার জন্য ঐতিহাসিক মন্দিরটি প্রতিদিন সকাল ৬ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত খোলা থাকে।

জামালপুর কিভাবে যাবেন

রাজধানী ঢাকা থেকে বাস ও ট্রেনে জামালপুর (Jamalpur) যাওয়া যায়। তবে ঢাকা হতে জামালপুর যাওয়ার ক্ষেত্রে ট্রেনই বেশি সুবিধাজনক। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে যমুনা, তিস্তা, ব্রহ্মপুত্র এবং অগ্নিবীণা এক্সপ্রেস ট্রেনে চড়ে জামালপুর যাওয়া যায়। ঢাকা থেকে বাসে করে জামালপুর যেতে চাইলে মহাখালী বাস স্ট্যান্ড থেকে মহানগর, এনা কিংবা রাজীব পরিবহণের বাসে যেতে পারবেন।

বাস কিংবা ট্রেনে জামালপুর জেলায় পৌঁছে রিক্সা বা ইজিবাইক ভাড়া করে পৌর শহরের জিরো পয়েন্টে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী দয়াময়ী মন্দির দর্শনে যেতে পারবেন।

জামালপুর কোথায় থাকবেন

জামালপুর সদরে অবস্থিত আবাসিক হোটেলগুলোতে রাতে থাকতে পারবেন। জামালপুরের আবাসিক হোটেলগুলোর মধ্যে হোটেল রায়ান ইন্টারন্যাশনাল (01735-544650), হোটেল সৌদিয়া ইন্টারন্যাশনাল (01766-755755), হোটেল শেখ রিপন ইন্টারন্যাশনাল (01717-629225), হোটেল প্রতিক্ষা (01912-877811), হোটেল আল সামাদ (01725-067720) উল্লেখযোগ্য।

ফিচার ইমেজ : লিটন দেব

ম্যাপে দয়াময়ী মন্দির

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।