জাতীয় উদ্ভিদ উদ্যান (বাংলাদেশ ন্যাশনাল হার্বেরিয়াম) বোটানিক্যাল গার্ডেন (Botanical Garden) হিসেবে অধিক পরিচিত। মিরপুরে বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানার পাশেই বোটানিক্যাল গার্ডেনের অবস্থান। ২০৮ একর জায়গার উপর প্রতিষ্ঠিত এই জাতীয় উদ্ভিদ উদ্যানে প্রায় ৮০০ প্রজাতির বিভিন্ন বৃক্ষ রয়েছে। এই সব বৃক্ষরাজির মধ্যে রয়েছে নানান ধরনের ফুল, ফল, বনজ এবং ঔষধি গাছ। বোটানিক্যাল গার্ডেনে ফুলের বাগান ছাড়াও রয়েছে পুকুর, দীঘি ও ঘাসে ঢাকা সবুজ মাঠ।

রাজধানী ঢাকা শহরের ভেতরে সবুজের রাজ্যে ভ্রমণের জন্য বোটানিক্যাল গার্ডেন অনন্য। তাই প্রতি বছর হাজার হাজার দর্শনার্থী এখানে বেড়াতে আসেন।

টিকেট মূল্য

বোটানিক্যাল গার্ডেনে প্রবেশ করতে জনপ্রতি ২০ টাকা দিয়ে প্রবেশ টিকেট সংগ্রহ করতে হয়। ছোট বাচ্চাদের প্রবেশ টিকেটের মূল্যের পরিমান ৫ টাকা। শিক্ষা সফরে আসা শিক্ষার্থীরা কতৃপক্ষের সাথে কথা বলে জনপ্রতি ৩ টাকায় বোটানিক্যাল গার্ডেনে প্রবেশ করতে পারে।

পরিদর্শনের সময়সূচী

মার্চ থেকে নভেম্বর মাসে বোটানিক্যাল গার্ডেন প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকে তবে ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি মাসে বিকেল ৪ টা ৩০ মিনিটে বোটানিক্যাল গার্ডেন দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ করে দেয়া হয়।

কিভাবে যাবেন

গাবতলী বাস টার্মিনাল থেকে লেগুনায় চড়ে সরাসরি বোটানিক্যাল গার্ডেন যেতে ১০ টাকা খরচ হবে। আর সদরঘাট বাস টার্মিনাল থেকে মিরপুর ১ হয়ে চলাচলকারী গাড়ীতে করে ২৫ টাকা দিয়ে সহজে বোটানিক্যাল গার্ডেনে যেতে পারবেন।

কোথায় খাবেন

বোটানিক্যাল গার্ডেনের সামনের খাবার দোকান গুলোতে খাবারের দাম অনেক বেশি। তাই ওইসব দোকান থেকে কিছু কেনার আগে সচেতন হোন। চাইলে মিরপুর ১ এর গোল চত্বর থেকে হালকা খাবার কিনে নিয়ে যেতে পারেন কিংবা বোটানিক্যাল গার্ডেন থেকে ফিরে এসে পছন্দের খাবার খেতে পারেন।

ম্যাপে বোটানিক্যাল গার্ডেন

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।