করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে আগামী কিছুদিন কোথাও ভ্রমণ থেকে বিরত থাকুন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন ও সচেতন থাকুন। করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত সকল তথ্য জানতে এখানে ক্লিক করুন

বীরশ্রেষ্ঠ ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট মতিউর রহমান (Birshreshtha Matiur Rahman) ১৯৪১ সালের ২৯ অক্টোবর পুরান ঢাকায় অবস্থিত মোবারক লজ-এ জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পৈতৃক নিবাস নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার রামনগর গ্রাম বর্তমানে মতিনগর নামে পরিচিত। ১১ জন ৯ ভাইবোনের মধ্যে মতিউর রহমান ছিলেন ৬ষ্ঠ। তাঁর বাবা নাম মৌলভী আবদুস সামাদ এবং মাতা সৈয়দা মোবারকুন্নেসা খাতুন। ঢাকা কলেজিয়েট স্কুল থেকে পঞ্চম শ্রেণী শেষ করে পাকিস্তান বিমান বাহিনী পাবলিক স্কুল হতে সাফল্যের সাথে ডিস্টিংকশনসহ মেট্রিক পরীক্ষায় প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হন।

১৯৬৩ সালে রিসালপুর পিএএফ কলেজ থেকে পাইলট অফিসার হিসেবে কমিশন লাভ করে করাচির মৌরিপুর এয়ার বেজ এর ২ নম্বর স্কোয়ার্ডনে জেনারেল ডিউটি পাইলট হিসাবে নিযুক্ত হন। বিমান বাহিনীর বিভিন্ন পরীক্ষায় সাফল্যের সাথে উত্তীর্ণ হওয়ার পর তাকে পেশোয়ারে পোস্টিং দেয়া হয়। ১৯৬৭ সালে মতিউর রহমান ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট পদে পদোন্নতি লাভ করেন এবং ১৯৭০ সালে জেট ফ্লাইং ইন্সট্রাক্টর নিযুক্ত হন।

১৯৭১ সালের জানুয়ারিতে মতিউর রহমান সপরিবারে ঢাকায় ছুটি কাটাতে আসেন। ২৫ মার্চের পর যুদ্ধ শুরু হয়ে গেলে মতিউর রহমান ভৈরবে একটি ট্রেনিং ক্যাম্প খুলে বাঙালিদের যুদ্ধের প্রশিক্ষণ দিতে থাকেন৷ মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে প্রতিরোধ বাহিনী গড়ে তোলেন। পাকিস্থানি বাহিনী ভৈরব আক্রমণ করলে বেঙ্গল রেজিমেন্টে ইপিআরের সাথে দৃঢ়তার সঙ্গে প্রতিরোধ করেন। ২৩ এপ্রিল ঢাকা এসে ৯ মে সপরিবারে করাচির কর্মস্থলে ফিরে গিয়ে জঙ্গি বিমান দখল করে মুক্তিযুদ্ধে ব্যবহারের পরিকল্পনা করেন। ২০ আগস্ট বিমান ছিনতাই করে যাওয়ার সময় ভারতীয় সীমান্ত থেকে মাত্র ৩৫ মাইল দূরে বিধ্বস্ত হয়। প্যারাস্যুট না থাকায় বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান নিহত হন। ঘটনাস্থল হতে প্রায় আধ মাইল দূরে তাঁর মৃতদেহ পাওয়া যায়।

পাকিস্তান সরকার করাচির মাসরুর বিমান ঘাটির চতুর্থ শ্রেণীর কবরস্থানে মতিউর রহমানকে সমাহিত করে। ২০০৬ সালের ২৪ জুন বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমানের দেহাবশেষ পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশে এনে পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় ঢাকার মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে পুনরায় সমাহিত করা হয়।

কিভাবে যাবেন

রাজধানী ঢাকার যেকোন স্থান থেকে নিজস্ব পরিবহণ ব্যবস্থা অথবা মিরপুরগামী বাসে চড়ে মিরপুর ১ এর মাজার রোডে অবস্থিত শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমানের সমাধিতে যেতে পারবেন।

ফিচার ইমেজ: রানা দিপম বসু

ম্যাপে বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমানের সমাধি

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।