পঞ্চগড় জেলা সদর থেকে ৯ কিলোমিটার দূরে আটোয়ারী উপজেলার মির্জাপুরে বার আউলিয়া মাজার (Bara Aulia Shrine) অবস্থিত। প্রচলিত আছে, ২টি বাঘ ও ২টি সাপ সবসময় এই মাজারটি পাহারা দিতো এবং কেউ খারাপ উদ্দেশ্যে মাজারে আসলে বাঘ দুটি বের হত। বার আউলিয়াদের আধ্যাত্মিক ক্ষমতা নিয়ে বিভিন্ন ধরণের জনশ্রুতি প্রচলিত রয়েছে।

কথিত আছে, সপ্তদশ শতকে মধ্যপ্রাচ্য থেকে হেমায়েত আলী শাহ্‌ (রঃ), নিয়ামত উল্লাহ শাহ্‌ (রঃ), কেরামত আলী শাহ্‌ (রঃ), আজহার আলী শাহ্‌ (রঃ), হাকিম আলী শাহ্‌ (রঃ), মনসুর আলী শাহ্‌ (রঃ), মমিনুল শাহ্‌ (রঃ), শেখ গরীবুল্লাহ (রঃ), আমজাদ আলী মোল্লা (রঃ), ফরিজউদ্দিন আখতার (রঃ), শাহ্‌ মোক্তার আলী (রঃ) ও শাহ্‌ অলিউল্লাহ (রঃ) নামের বারজন ওলী চট্টগ্রাম শহরে এসে প্রথম আস্থানা গড়েন। পরবর্তীতে তারা ইসলাম প্রচার করতে করতে উত্তর বঙ্গের এসে মির্জাপুর ইউনিয়নের আস্থানা গড়ে তুলেন। তাদের মৃত্যুর পর এই বারজন সুফি সাধককে আটোয়ারী উপজেলাতে সমাহিত করা হয়। আর বারজন ওলীর সমাধিকে কেন্দ্র করে বার আউলিয়ার মাজার গড়ে উঠেছে।

১৯৯০ সালে পঞ্চগড় জেলা প্রশাসন ও জেলা পরিষদের উদ্যোগে বার আউলিয়া মাজার পাকা করা হয় এবং ক্রমান্বয়ে আশেপাশের জায়গায় গোরস্থান, পুকুর, মসজিদ, মাদ্রাসা ও এতিমখানা নির্মাণ করা হয়। প্রতিবছর বৈশাখ মাসের শেষ বৃহস্পতিবার বার আউলিয়ার মাজার প্রাঙ্গনে ওরশ মোবারক, ওয়াজ মাহফিল, কোরআন খানি ও তোবারক বিতরনের আয়োজন করা হয়। তখন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কয়েক লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লির আগমন ঘটে। ওরশ ছাড়াও প্রতিদিন বিভিন্ন মানত নিয়ে অসংখ্য মানুষ এই মাজারে আগমন করেন।

কিভাবে যাবেন

ঢাকার শ্যামলী, গাবতলী বাস টার্মিনাল ও মিরপুর থেকে নাবিল পরিবহন, হানিফ এন্টারপ্রাইস, তানযিলা ট্রাভেল, বরকত ট্রাভেল এ পঞ্চগড় যেতে পারবেন। ঢাকা থেকে পঞ্চগড় নন এসি বাস ভাড়া ৫৫০-৭০০ টাকা এবং এসি বাস ভাড়া ৮০০-১৬০০ টাকা।

ট্রেনে যেতে চাইলে ঢাকার কমলাপুর থেকে পঞ্চগড় এক্সপ্রেস, একতা ও দ্রুতযান এক্সপ্রেস ট্রেনে পঞ্চগড় আসতে পারেন। শ্রেণী অনুযায়ী ট্রেন টিকেটের ভাড়া জনপ্রতি ৩৬৫ থেকে ১২৫৪ টাকা পর্যন্ত।

পঞ্চগড় থেকে লোকাল বাসে আটোয়ারী উপজেলায় এসে স্থানীয় পরিবহণে বার আউলিয়ার মাজারে যেতে পারবেন।

কোথায় থাকবেন

পঞ্চগড় শহরে রাত্রিযাপনের জন্য আবাসিক হোটেলের মধ্যে হোটেল মৌচাক, হোটেল রাজ নগর, হিলটন বোর্ডিং, রোকখানা বোর্ডিং, হোটেল প্রীতম, হোটেল এইচ কে প্যালেস ও হোটেল ইসলাম উল্লেখযোগ্য।

কোথায় খাবেন

আটোয়ারী উপজেলায় সাধারণ মানের বাঙ্গালী খাবারের হোটেল খুঁজে পাবেন। ভালমানের খাবারের জন্য পঞ্চগড় জেলায় অবস্থিত হোটেল করোটিয়া, হোটেল মৌচাক, হোটেল নিরিবিলি, হোটেল হাইওয়ে ও হোটেল হামজা রেস্তোরাঁয় যেতে পারেন।

পঞ্চগড় জেলার দর্শনীয় স্থান

পঞ্চগড় জেলার অন্যান্য দর্শনীয় স্থানের মধ্যে বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্ট, তেঁতুলিয়া থেকে কাঞ্ছনজঙ্খা, চা বাগান ও রকস মিউজিয়াম অন্যতম।

ফিচার ইমেজ: মহসিন উদ্দিন

ম্যাপে বার আউলিয়া মাজার

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।