ময়মনসিংহ জেলা শহর থেকে মাত্র ৪ কিলোমিটার দূরে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে প্রায় ১২০০ একর জায়গা নিয়ে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (Bangladesh Agricultural University) প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। ১৯৬১ সালে কার্যক্রম শুরু হওয়া বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে প্রশাসনিক ভবন, কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার, বিভিন্ন অনুষদীয় ভবন, ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র, মিলনায়তন, বোটানিক্যাল গার্ডেন, হর্টিকালচার ফিল্ড, স্টেডিয়াম, জিমনেসিয়াম, জিটিআই ভবন, স্বাস্থ্য কেন্দ্র, ১৩ টি আবাসিক হল এবং ড. ওয়াজেদ মিয়া ডরমিটরী।

এছাড়াও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে আছে ফুলের বাগান, আম, লিচুর বাগান, সবুজ মাঠ, লেক, ফিস মিউজিয়াম, কৃষি মিউজিয়াম, সেন্ট্রাল মসজিদ, বিভিন্ন ফসলের ক্ষেত, মাছ চাষের পুকুর, গবাদী পশুর খামার, নান্দনিক সড়ক এবং বিভিন্ন দর্শনীয় ভাস্কর্য।

কীভাবে যাবেন

ঢাকা থেকে বাস বা ট্রেনে ময়মনসিংহ জেলা শহরে এসে রিকশা বা অটোরিকশা নিয়ে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে যেতে পারবেন।

ঢাকা থেকে এনা, আলম এশিয়া, শামীম এন্টারপ্রাইজ (এসি/ননএসি), শৌখিন কিংবা নিরাপদ পরিবহনের এসি/নন-এসি বাসে করে ১৮০ থেকে ৩৭০ টাকা ভাড়ায় ময়মনসিংহ যেতে পারবেন। ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ যেতে আড়াই থেকে তিন ঘণ্টা সময় লাগে।

ঢাকা থেকে ট্রেনে ময়মনসিংহ ভ্রমণ করতে চাইলে তিস্তা এক্সপ্রেস (সকাল ৭ঃ৩০), মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস (দুপুর ২ঃ২০), যমুনা এক্সপ্রেস (বিকেল ৪ঃ৪০), ব্রহ্মপুত্র (সন্ধ্যা ৬ঃ০০) এবং হাওর এক্সপ্রেস (রাত ১১ঃ৫০) এইসব ট্রেনের যে কোনটায় আপনার সময় ও পছন্দমত ট্রেনে সরাসরি ময়মনসিংহ যেতে পারবেন। শ্রেণীভেদে ভাড়া ১২০ থেকে ৩৬০ টাকা। যেতে সময় লাগবে ৩ থেকে ৪ ঘন্টা।

কোথায় থাকবেন

ময়মনসিংহ শহরে বিভিন্ন মানের হোটেল থেকে আপনার জন্য ভাল হোটেল বেছে নিতে পারেন। এজন্য ভরসা করতে পারেন আমির ইন্টারন্যাশনাল অথবা হোটেল মুস্তাফিজ-এর উপর।

কোথায় খাবেন

ময়মনসিংহ শহরে প্রেসক্লাব ক্যান্টিনের মোরগ পোলাও চেখে দেখতে পারেন। এছাড়া হোটেল ধানসিঁড়ি ও হোটেল সারিন্দার ভাল মানের খাবারের জন্য বেশ সুনাম রয়েছে।

ম্যাপে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।