গোপালগঞ্জ জেলার আড়পাড়া গ্রামে বিল রুট ক্যানেল খালের কাছে আড়পাড়া মুন্সীবাড়ি (Arpara Munsi Bari) অবস্থিত। প্রায় ৫০ বছর থেকে ৬০ বছর পুরাতন দোতলা এই বাড়িটি স্থানীয়ভাবে মর্যাদাসম্পন্ন ও প্রভাবশালী মুন্সী পরিবার তৈরী করেন। আড়পাড়া মুন্সীবাড়ি বর্তমানে জরাজীর্ণ ও পরিত্যাক্ত অবস্থায় রয়েছে এবং বাড়ির মালিক অন্যত্র বসবাস করছেন।

আড়পাড়া মুন্সীবাড়ির ভগ্নদশাও তৎকালীন সময়ের আভিজাত্যকে মনে করিয়ে দেয়। অবহেলায় দরজা জানালাহীন বাড়ির বিভিন্ন অংশে গজিয়ে উঠেছে ছোট বড় গাছপালা। বর্তমানে এই পরিত্যক্ত বাড়িটি নানা প্রজাতি পাখি ও হাজার হাজার বাদুড়ের আবাসস্থলে পরিণত হয়েছে।

কিভাবে যাবেন

গোপালগঞ্জ জেলা শহর থেকে নিমতলী মোড় পেড়িয়ে আরো কিছুটা এগিয়ে গেলে আড়পাড়া মুন্সীবাড়ি পৌঁছে যাবেন। এছাড়া টেকেরহাট-গোপালগঞ্জ মহাসড়কের পাশে আড়পাড়া গ্রামে এসে বিল রুট ক্যানেল পাড়ি দিয়েও আড়পাড়া মুন্সীবাড়ি যাওয়া যায়।

কোথায় থাকবেন

গোপালগঞ্জ জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্রে থাকার জন্য হোটেল পলাশ, হোটেল রানা (02-6685172), হোটেল তাজ, হোটেল সোহাগ (0668-61740), হোটেল রিফাত এবং হোটেল শিমুল নামে বেশ কয়েকটি সাধারণ মানের আবাসিক হোটেল রয়েছে। ধরণ এবং মান অনুযায়ী এসব হোটেলে রুম ভাড়া ৪০০ থেকে ১২০০ টাকা পর্যন্ত। এছাড়া থাকার জন্যে আছে গোপালগঞ্জের জেলা পরিষদ কটেজ, (যোগাযোগ: প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা পরিষদ, ফোন: 0668-61204) এবং গোপালগঞ্জ সার্কিট হাউজ (ডেপুটি কালেক্টর, ফোন: 02-6685234, 02-6685565)।

ফিচার ইমেজ: মাহবুবুর রহমান

ম্যাপে আড়পাড়া মুন্সীবাড়ি

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।