রাঙ্গামাটি জেলার সেনানিবাস এলাকায় মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশে নির্মিত পারিবারিক বিনোদন কেন্দ্রের নাম আরণ্যক হলিডে রিসোর্ট (Aronnak Holiday Resort)। কাপ্তাই হ্রদে ঘেরা শান্ত ও ছিমছাম পরিবেশের আরণ্যক রিসোর্টটি সুনিপুণ ভাবে ছবির মত সাজানো গোছানো। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কতৃক পরিচালিত আকর্ষনীয় এই রিসোর্টে রয়েছে ছোটদের জন্য বিভিন্ন রাইড, হ্যাপি আইল্যান্ড, ওয়াটার ওয়ার্ল্ড, পেডেল বোট, সুইমিং পুল, রেস্টুরেন্ট এবং খেলাধুলার ব্যবস্থা।

কাপ্তাই হৃদের পাড়ে সবুজ ঘাসে মোড়ানো আরণ্যক রিসোর্টের প্রথম অংশে আছে নান্দ্যনিক ফুলের বাগান, নানা রকম ভাস্কর্য, রিসোর্ট, স্পিডবোট ও প্যাডেল বোটে চড়ার সুবিধা এবং কফি শপ। রিসোর্ট রুম বুকিং ছাড়াও চাইলে আপনি আরণ্যক রিসোর্ট এর সবকিছু ঘুরে দেখতে পারবেন। এজন্যে প্রবেশ টিকেট মূল্য ৫০ টাকা। আরণ্যক হলিডে রিসোর্টের দ্বিতীয় অংশের হ্যাপি আইল্যান্ডে আছে ওয়াটার ওয়ার্ল্ড, পার্ক, রাইডার, বোট রাইডিং এবং লেকভিউ সুইমিং পুল। হ্যাপি আইল্যান্ডের ওয়াটার ওয়ার্ল্ডে প্রবেশ টিকেটের মূল্য ১৫০ টাকা। প্রতি সোমবার শুধুমাত্র দর্শনার্থীদের জন্যে প্রবেশ বন্ধ থাকে।

যোগাযোগ ও বুকিং
মোবাইল: 01769-312021
ফেসবুক পেইজ: fb.com/AronnakHolidayCottage

কিভাবে যাবেন

ঢাকা হতে ঢাকার ফকিরাপুল মোড় ও সায়দাবাদে রাঙ্গামাটি যাওয়ার অসংখ্য বাস কাউন্টার রয়েছে। এই বাসগুলো সাধারণত সকাল ৮ টা থেকে ৯ টা এবং রাত ৮ টা ৩০ মিনিট থেকে রাত ১১ টার মধ্যে ঢাকা থেকে রাঙ্গামাটির উদ্দেশ্যে ছাড়ে। ঢাকা টু রাঙ্গামাটি শ্যামলীর এসি বাসের প্রতি সীট ভাড়া ৯০০ টাকা, বিআরটিসি এসি বাসের ভাড়া ৭০০ টাকা। এছাড়া সকল নন-এসি বাসের ভাড়া ৬০০ থেকে ৭০০ টাকার মধ্যে।

চট্টগ্রাম হতে চট্টগ্রাম শহরের অক্সিজেন মোড় থেকে রাঙ্গামাটিগামী বিভিন্ন পরিবহণের লোকাল ও গেইটলক/ডাইরেক্ট বাস পাওয়া যায়। ভাড়া একটু বেশি হলেও গেইটলক বা ডাইরেক্ট বাসে উঠা উচিত। চট্টগ্রাম হতে রাঙ্গামাটি ডাইরেক্ট বাস ১৫০ টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন। চট্টগ্রামের বহাদ্দারহাট বাস টার্মিনাল থেকেও রাঙ্গামাটি যাবার বাস পাবেন।

বাস থেকে রাঙ্গামাটি ক্যান্টনমেন্টে নেমে যে কাউকে জিজ্ঞাসা করলেই আরণ্যক হলিডে রিসোর্টের পথ দেখিয়ে দেবে। মেইন রোড থেকে পায়ে হেটে রিসোর্টে যেতে ১০-১৫ মিনিট সময় লাগে। এছাড়া মেইন রোডে একটু অপেক্ষা করলে রিসোর্টে যাওয়ার জন্য অটো ও সিএনজি ভাড়া করতে পারবেন।

Aronnak Holiday Resort
Aronnak Resort

কোথায় থাকবেন

আরণ্যক রিসোর্টে থাকার জন্যে কয়েক ধরণের রুম রয়েছে। কমপ্লিমেন্টারি ব্রেকফাস্ট, ফ্রি ওয়াইফাই ও আরও বেশ কিছু সুবিধাসহ গাংশালিক লাক্সারি, আরণ্যক লাক্সারি, টুইন বাংলো কটেজ ও স্ট্যান্ডার্ড নামের এই রুম গুলোতে থাকতে প্রতি রাতের জন্যে খরচ হবে ৫,০০০ থেকে ১০,০০০ টাকা।

এছাড়া রিসোর্টে যদি শুধুমাত্র ঘোরার জন্যে যান এবং অন্য কোথাও থাকতে চান রাঙ্গামাটি শহরের অবস্থিত অন্যান্য হোটেল কিংবা রিসোর্টে রাত্রিযাপন করতে পারবেন। রাঙ্গামাটির উল্লেখযোগ্য হোটেলের মধ্যে রয়েছে পর্যটন হলিডে কমপ্লেক্স, হোটেল সুফিয়া ইন্টারন্যাশনাল, হোটেল প্রিন্স, মোটেল জজ, গ্রিন ক্যাসেল, হোটেল সাংহাই।

পড়ুন : রাঙ্গামাটির সকল হোটেল ও রিসোর্ট

কোথায় খাবেন

খাওয়ার জন্যে আরণ্যক রিসোর্টেই রেস্টুরেন্ট আছে। সেখানে খেয়ে নিতে পারবেন। খেতে চাইলে আগেই অর্ডার দিতে হবে। এছাড়া আরণ্যক রিসোর্টের আশেপাশে তেমন ভাল মানের হোটেল নেই। তবে সাধারণ মানের হোটেলে খেতে চাইলে আপনাকে মানিয়ে নিতে হবে। এছাড়া যদি সম্ভব হয় মাত্র ৩ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত বনরুপা বাজারে গিয়ে দুপুরের খাবার খেয়ে আসতে পারেন।

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।