বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী পটুয়াখালী জেলার বরিশাল-পটুয়াখালী সংলগ্ন রোডে দক্ষিণাঞ্চলের জনপ্রিয় আলীপুর মৎস্য বাজার (Alipur Fish Market) অবস্থিত। এখানে দেশী ও সামুদ্রিক মাছের আড়ত আছে। বাজারে ছোট খাটো হাওর থেকে শুরু করে বড় নদী ও সাগর থেকে সংগ্রহীত প্রচুর মাছ পাওয়া যায়। কাঁকড়া, রূপচাঁদা, কোরালসহ বিভিন্ন জাতের সামুদ্রিক ও দেশীয় মাছের দেখা মিলবে এই বাজারে। এমনকি প্রায়ই ছোট ছোট হাঙ্গর মাছেরও সন্ধান মিলে। বাজার ঘুরে সস্তায় মাছ কেনার উদ্দেশ্যে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পাইকারি ও খুচরা মৎস্য ব্যবসায়ীরা আলীপুর মাছ বাজারে ভিড় করেন।

আলীপুর মাছের বাজার দেখা শেষ করে ব্রীজের কাছে নৌকা ঘাট ঘুরে দেখতে পারেন। গভীর সমুদ্রগামী সাম্পান নৌকাগুলো এই ঘাট দিয়েই সবসময় যাতায়াত করে। আর এই নৌকাগুলো নিয়েই মৎস্য শিকারিরা মাছ শিকারে বের হয়। ইচ্ছে করলে মৎস্য শিকারিদের সাথে আপনিও যোগ দিতে পারেন। তবে সেই ক্ষেত্রে আগে যোগাযোগ করে নিতে হবে।

কিভাবে যাবেন

নদী ও সড়ক পথে ঢাকা থেকে কুয়াকাটা যাওয়া যায়। পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় সড়ক পথে ঢাকা থেকে কুয়াকাটা অনেক কম সময়ে এবং সহজে যাওয়া যায়। ঢাকা থেকে কুয়াকাটার দূরত্ব প্রায় ২৯৪ কিলোমিটার। বাসে যেতে সময় লাগবে প্রায় ৬-৭ ঘন্টা। ঢাকার সায়েদাবাদ, আবদুল্লাপুর, আরামবাগ অথবা গাবতলী বাস স্ট্যান্ড থেকে সাকুরা পরিবহন, শ্যামলী, গ্রীনলাইন, ইউরো কোচ, হানিফ, টি আর ট্রাভেলস সহ আরও অনেক পরিবহনের বাস সরাসরি কুয়াকাটা যায়। ঢাকা থেকে কুয়াকাটা নন-এসি বাসের ভাড়া ৭৫০- ৯০০ টাকা এবং এসি বাসের ভাড়া ১১০০-১৬০০ টাকা। কুয়াকাটা থেকে ব্যাটারিচালিত ভ্যানে আলীপুর মাছ বাজারে পৌঁছানো যায়।

কোথায় থাকবেন

কুয়াকাটায় থাকার জন্য জিরো পয়েন্ট এর কাছে বিভিন্ন মানের আবাসিক হোটেল রয়েছে। এদের মধ্যে ইয়ুথ ইন হোটেল, হলিডে হোমস, হোটেল গ্রেভার ইন, সি ভিউ হোটেল, বীচ হ্যাভেন হোটেল ও সি গার্ল অন্যতম।

কোথায় খাবেন

কুয়াকাটায় অধিকাংশ আবাসিক হোটেল গুলোতে খাবারের ব্যবস্থা রয়েছে। সি বীচে বিভিন্ন ধরণের সামুদ্রিক মাছ ও ভিন্নধর্মী খাবার খাওয়ার সুযোগ আছে। তবে এই ক্ষেত্রে অবশ্যই দাম যাচাই করে নিবেন।

কিছু ভ্রমণ পরামর্শ

  • ভোরবেলা কুয়াকাটার অন্যান্য স্পট ঘুরে দেখে আলীপুর মাছ বাজারে যাওয়া ভালো।
  • মাছের বাজারের সকাল সকাল যাওয়ার চেষ্টা করবেন, বেলা যত বাড়তে থাকবে মাছের বাজারের কেনাবেচা তত কমতে থাকবে।
  • ইলিশ মাছ কিনতে চাইলে মাছের প্রজনন কালীন সময় এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করুন।

পটুয়াখালী জেলার দর্শনীয় স্থান

পটুয়াখালীর অন্যান্য দর্শনীয় স্থানের মধ্যে কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত, মজিদবাড়িয়া শাহী মসজিদ, সীমা বৌদ্ধ মন্দির,  চর বিজয়, পানি জাদুঘর, সোনারচর ও ফাতরার চর উল্লেখযোগ্য।

ফিচার ইমেজ: আসাদ মিঠু

ভ্রমণ সংক্রান্ত যে কোন তথ্য ও আপডেট জানতে ফলো করুন আমাদের ফেসবুক পেইজ এবং জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে

ম্যাপে আলীপুর মাছ বাজার

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।