চট্টগ্রাম বিভাগের অন্যতম জেলা পার্বত্য রূপের রানী বান্দরবান ভ্রমণ পাগল পর্যটকদের কাছে যেন এক স্বর্গ রাজ্য। দিগন্ত জোড়া সবুজ পাহাড় আর মেঘের লুকোচুরি খেলা দেখতে চাইলে বান্দরবান অতুলনীয়। প্রাকৃতিক ঝর্ণা, সুউচ্চ পাহাড় আর নৈস্বর্গিক লেকের মতো বেশকিছু দর্শনীয় স্থান সমৃদ্ধ করেছে এই পার্বত্য জেলাকে। এছাড়া এখানে সময়ে সময়ে হাত বাড়িয়ে মেঘ ছোঁয়ার অভিজ্ঞতাও নেয়া যায়। বান্দরবান জেলার দর্শনীয় স্থানের মধ্যে নীলগিরি, নীলাচল, কেওক্রাডং, বগালেক, শৈলপ্রপাত ঝর্ণা, চিংড়ি ঝর্ণা, নাফাখুম, মেঘলা পর্যটন কেন্দ্র, আলীর গুহা এবং স্বর্ণ মন্দির প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।

বিভিন্ন প্রয়োজনে তাই বান্দরবান গমনকারী মানুষের সংখ্যা মোটেও কম নয়। এছাড়া ভ্রমণের উদ্দেশ্যে বান্দরবানের বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানগুলোতে অসংখ্য পর্যটকের সমাগম ঘটে। ভ্রমণ গাইডের আজকের আয়োজনে রাজধানী ঢাকা থেকে বান্দরবান যাওয়ার উপায় এবং ভ্রমণ খরচ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানবো।

যেভাবে ঢাকা থেকে বান্দরবান যাবেন

রাজধানী ঢাকা হতে সরাসরি বান্দরবান যাওয়ার জন্য বাস ছাড়া দ্বিতীয় কোন ব্যবস্থা নেই। যদি রেলওয়ে কিংবা আকাশ পথে বান্দরবান যেতে চান সেক্ষেত্রে ট্রেন বা প্লেনে চড়ে প্রথমে চট্টগ্রাম আসতে হবে। চট্টগ্রাম থেকে বান্দরবান যাওয়ার বাস পাওয়া যায়। ঢাকা থেকে সরাসরি বাসেই বান্দরবান যাওয়া সবচেয়ে ভালো এবং আরামদায়ক।

ঢাকা থেকে বাসে বান্দরবান

বাস হচ্ছে ঢাকা থেকে সরাসরি বান্দরবান যাওয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম। রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন স্থান থেকে দেশ ট্রাভেলস (01705- 430566), এস আলম (02-9002702), সৌদিয়া (01919-654926), সেন্টমার্টিন পরিবহন (01762-691341), ইউনিক (01963-622236), হানিফ (01713-402673), শ্যামলী (02-7541336, 02-7541336), ঈগল (01793-328045) এবং ডলফিন পরিবহনের নন-এসি বাস বান্দরবানের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। ঢাকা থেকে বান্দরবানের দূরত্ব প্রায় ৩২৬ কিলোমিটার এবং বাসে বান্দরবান যেতে সময় লাগে প্রায় ৮-১০ ঘন্টা।

আর বান্দরবানগামী এসি বাসের মধ্যে আছে দেশ ট্রাভেলস (02-7192345, 01762-684430, 01709-989436), সেইন্টমার্টিন পরিবহন (01762691350, 01762-691342), সেইন্টমার্টিন হোন্দায় পরিবহন (01972-691353), শ্যামলী পরিবহন (এসপি ও এনআর) এবং হানিফ এন্টারপ্রাইজ।

বাসের ধরণভাড়া
নন এসি বাস৬২০ থেকে ৬৫০ টাকা
এসি বাস৯৫০ থেকে ১৫০০ টাকা

ঢাকা থেকে ট্রেনে বান্দরবান

রেলপথে ঢাকা হতে সরাসরি বান্দরবান যাওয়ার কোন উপায় নেই। তাই ট্রেন ভ্রমণের ক্ষেত্রে প্রথমে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম এসে নগরীর বদ্দারহাট বাস টার্মিনাল থেকে পূবালী কিংবা পূর্বানী বাসে চড়ে জনপ্রতি ২২০ টাকা ভাড়ায় বান্দরবান যেতে পারবেন। এছাড়া চট্রগ্রামের দামপাড়া বাস স্ট্যান্ড থেকে জনপ্রতি ২০০ – ৩০০ টাকায় বান্দরবান আসতে পারবেন।

ঢাকার কমলাপুর রেলষ্টেশন হতে আন্তঃনগর সোনার বাংলা এক্সপ্রেস, সুবর্ন এক্সপ্রেস, তূর্ণা এক্সপ্রেস, মহানগর প্রভাতী এবং মহানগর গোধূলী ট্রেন চট্টগ্রামের পথে চলাচল করে। আন্তঃনগর ট্রেন এছাড়াও ঢাকা হতে চট্টগ্রামগামী বেশকিছু মেইল এবং এক্সপ্রেস ট্রেন রয়েছে।

শ্রেণীভেদে ঢাকা টু চট্টগ্রাম আন্তঃনগর ট্রেনের টিকেট মূল্য

ক্লাসভাড়া
শোভন২৮৫ টাকা
শোভন চেয়ার৩৪৫ টাকা
স্নিগ্ধা৬৫৬ টাকা
১ম শ্রেণীর চেয়ার৪৬০ টাকা
১ম শ্রেণীর বাথ৬৮৫ টাকা
এসি সিট৭৮৮ টাকা
এই বাথ১,১৭৯ টাকা

ঢাকা থেকে বিমানে বান্দরবান

ঢাকা হতে বান্দরবান যেতে আকাশপথে গমণ একটি অপ্রচলিত মাধ্যম। তবে চাইলে ঢাকা হতে বিমানে চড়ে চট্টগ্রাম এসে বাসে বান্দরবান আসতে পারবেন। ঢাকা থেকে প্লেনে কিভাবে যাবেন তা জানতে হলে পড়ুন চট্টগ্রাম যাওয়ার উপায়

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।