উঁচুনিচু সবুজ পাহাড়ের সমারোহে অনন্য বাংলাদেশকে দেখতে হলে আপনাকে অবশ্যই বান্দরবান আসতে হবে। বাংলাদেশের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ, লেক, ঝর্ণা, ঐতিহ্যবাহী ধর্মীয় উপাসনালয়, পর্যটন কেন্দ্র কি নেই এখানে! বছরজুড়ে তাই বান্দরবান মুখর থাকে ভ্রমনপ্রিয় পর্যটকদের পদচারনায়।

অল্প সময়ে বান্দরবানের সকল দর্শনীয় স্থান ভ্রমণ করা সম্ভব নয় তাই সৌন্দর্য্য আহরণে পর্যটকদের প্রায়শই বান্দরবানে রাত্রি যাপন করতে হয়। ভ্রমণ গাইডের আজকের আয়োজনে জানবো বান্দরবানের সকল রিসোর্ট ও হোটেলের নাম, অবস্থান, থাকতে কেমন খরচ হবে, শহর থেকে দূরত্ব এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য।

হোটেল ভাড়া অনেক সময় পরিবর্তন হয়, তাই বুকিং এর আগে যোগাযোগ করে বর্তমান ভাড়া জেনে নিন। এছাড়া বিভিন্ন উপলক্ষে হোটেল ভাড়ার উপর ডিসকাউন্ট অফার থাকে। অনেক সময় হোটেল ও রিসোর্ট গুলো প্যাকেজ আকারে অফার দিয়ে থাকে। খরচ কমাতে সেই সময় প্যাকেজ কিংবা অফার গুলোর উপর নজর রাখুন।

Best Hotels & Resorts In Bandarban

  • Sairu Hil Resort
  • Nilgiri Hil Resort
  • Nilachal Nilambori Resort
  • Hotel Hillton
  • Hotel Night Heaven
  • Holiday Inn Resort
  • Green Peak Resorts
  • Milonchori Hillside Resort
  • Fanush Resort
  • Hotel Plaza Bandarban

বান্দরবান কোথায় কি দেখবেন এবং প্রয়োজনীয় সকল তথ্য জানতে বান্দরবান ভ্রমণ গাইড দেখুন।

১। সাইরু হিল রিসোর্ট (Sairu Hil Resort)

বান্দরবান জেলা শহর থেকে মাত্র ১৮ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত সাইরু হিল রিসোর্ট বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর রিসোর্টগুলোর মধ্যে অন্যতম। বান্দরবান থেকে চিম্বুক পাহাড়ে যাবার পথে দেখা মিলবে চমৎকার এই রিসোর্টের। নান্দনিক ডিজাইন, প্রাকৃতিক পরিবেশ এবং প্রয়োজনীয় সুযোগ সুবিধায় সাইরু হিল রিসোর্ট হৃদয়কাড়ে বৈশিষ্ট্যের স্বকীয়তায়। সাইরু হিল রিসোর্টের কটেজ গুলোতে রাত্রিযাপন করতে হলে ১০ হাজার থেকে ২৫ হাজার টাকা খরচ করতে হবে। আর ভাগ্য ভাল থাকলে পেয়ে যেতে পারেন বিভিন্ন হারে ডিসকাউন্টের সুবিধা। অফার গুলো জানতে তাদের ফেসবুক পেইজে খেয়াল রাখতে পারেন।

যোগাযোগ:
বারো মাইল, চিম্বুক রোড, ওয়াই জংশন
ফোন: 01847417301-09
ওয়েবসাইট: www.sairuresort.com
ফেসবুক পেইজ: www.facebook.com/sairuresort

২। নীলগিরি হিল রিসোর্ট (Nilgiri Hil Resort)

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় দুই হাজার চারশ ফুট উপরে নীলগিরি পাহাড়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত নীলগিরি হিল রিসোর্ট তৈরী করা হয়েছে। সাজানো গোছানো, ছিমছাম এই রিসোর্ট থেকে রাতে জ্যোৎস্না দেখার অপূর্ব অভিজ্ঞতা নিতে পারেন। এছাড়া চারপাশে শুভ্র মেঘের উড়াউড়িও আপনাকে বিমোহিত করবে নিঃসন্দেহে।

নীলগিরি হিল রিসোর্টে মেঘদূত, আকাশলীনা, মারমা, ইনছায়া, ইখিয়াই, মারুইপ্রে, মরুইফং, নীলাঞ্জনা নামের ছোট-বড় মোট ৮ টি কটেজ রয়েছে। আর কটেজগুলোতে থাকতে খরচ করতে হবে ৮০০০ টাকা। নীলগিরি রিসোর্ট সবার কাছে আকর্ষনীয় হওয়ায় সাধারণত মাসখানেক আগে বুকিং না দিলে রুম পাওয়া যায় না, বিশেষ করে ছুটির দিনগুলোতে পূর্ব বুকিং ছাড়া রুম পাওয়া প্রায় অসম্ভব।

যোগাযোগ:
পেট্রো এভিয়েশন ৬৯/২, লেভেল-৪,রোড-৭/এ, ধানমন্ডি, ঢাকা।
ফোন: 01769-299999

৩। নীলাচল নীলাম্বরী রিসোর্ট (Nilachal Nilambori Resort)

বান্দরবান জেলা শহর থেকে মাত্র ছয় কিলোমিটার দূরে অবস্থিত নীলাচল পর্যটন কেন্দ্র বান্দরবান ভ্রমণে আসা পর্যটকদের কাছে অন্যতম আকর্ষণের নাম। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় এক হাজার ছয়শ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত নীলাচল পর্যটন কেন্দ্র থেকে সাঙ্গু নদী এবং দূরের বান্দরবান শহর দেখা যায়। এছাড়া এখানে সব ঋতুতেই হাত বাড়িয়ে মেঘ ছোঁয়া যায়।

নীলাচল পর্যটন কেন্দ্রে রাত্রিযাপনের জন্য তৈরী করা হয়েছে নীলাচল নীলাম্বরী রিসোর্ট। সাধারণ পর্যটকদের জন্য নীলাচল পর্যটন কেন্দ্রে শুধুমাত্র সূর্যাস্ত পর্যন্ত থাকার অনুমতি থাকলেও রিসোর্টের অতিথিদের জন্য সর্বক্ষণই খোলা থাকে নীলাচল। নীলাচল নীলাম্বরী রিসোর্টে তিনটি কটেজে ছয়টি কক্ষ আছে এবং সবগুলিই কাপল রুম। চাইলে অর্থের বিনিময়ে এক্সট্রা বেডের সুবিধা নিতে পারবেন। নীলাচল নীলাম্বরী রিসোর্টের প্রতিটি কক্ষের ভাড়া ৪,০০০ টাকা।

যোগাযোগ:
পর্যটন কমপ্লেক্স, নীলাচল রোড, বান্দরবান
ফোন: 01551-444000, 01770-232625
ফেসবুক পেইজ: www.facebook.com/Nilachal-Nilambori-Resort

৪। হোটেল হিলটন (Hotel Hillton)

যারা বান্দরবান শহরের খুব কাছে থাকতে চান তাদের জন্য হোটেল হিলটন হতে পারে আদর্শ জায়গা। বান্দরবান শহরের বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন এই হোটেলটি বেশ পরিচ্ছন্ন এবং সাজানো গুছানো। বিশাল বেড রুম বিশিষ্ট এই হোটেলে ১২০০ থেকে ৪৫০০ টাকায় রুম পাওয়া যায়।

যোগাযোগ:
ফোন: 01747-626111, 01551-712111

৫। হোটেল নাইট হেভেন (Hotel Night Heaven)

বান্দরবান শহর থেকে মাত্র ৫ কিলোমিটার দূরে মেঘলা পর্যটন কেন্দ্রের কাছে গড়ে তোলা হয়েছে হোটেল নাইট হেভেন। আধুনিক সকল সুযোগসুবিধা সম্বলিত এই হোটেলে আছে ফ্রি ওয়াইফাই, ২৪ ঘন্টা রুম সার্ভিস, ওয়েলকাম ড্রিংকস ও কমপ্লিমেন্টারি সকালের নাস্তা এবং রেন্ট এ কারের ব্যবস্থা। এছাড়াও হোটেল নাইট হেভেনে আছে সর্বোচ্চ ৫০ জনের যেকোন ইভেন্ট বা সেমিনার আয়োজনের সুবিধা।

Bandarban-Resort-Night-Heaven

এসি, নন-এসি, স্ট্যান্ডার্ড টুইন নন-এসি, ফোর বেড নন-এসি এবং স্যুইট ইত্যাদি ৫ ক্যাটাগরির রুমের যেকোন একটিতে থাকতে হলে ভাড়া লাগবে ২২০০ টাকা থেকে ৫৫০০ টাকা পর্যন্ত।

যোগাযোগ:
তালুকদার পাড়া, মেঘলা পর্যটন এরিয়া, বান্দরবান
ফোন: 01838506697, 01838506763, 01811510141
ওয়েবসাইট: www.hotelnightheaven.com
ফেসবুক পেইজ: www.facebook.com/hotelnightheavenbd

ঢাকা অফিস:
Plot-16, Road-1/A, Sector-13,Uttara, Dhaka -1230
ফোন: 01858-938273
ইমেইল: nightheaven365@gmail.com 

৬। হলিডে ইন রিসোর্ট (Holiday Inn Resort)

মেঘলা পর্যটন কমপ্লেক্সের কাছে পাহাড়ের চূড়ায় অবস্থিত হলিডে ইন রিসোর্ট কে ঘিরে আছে ছোট বড় পাহাড় আর সুদৃশ্য প্রাকৃতিক লেক। এছাড়া বান্দরবান শহর থেকে দূরত্ব কম হওয়ায় মেঘলার কাছে অবস্থিত এই রিসোর্টে সহজেই আসা যায়।

হলিডে ইন রিসোর্টের লেক ভিউ রুম, হানিমুন কটেজ বা ফ্যামিলি কটেজের রুম ভাড়া ২৪০০ থেকে ৬০০০ টাকা পর্যন্ত।

ফোন: 01553325347, 01324733707
ইমেইল: holidayinnbandarbanresort@gmail.com
ফেসবুক পেইজ: www.facebook.com/HolidayInnBandarban

৭। গ্রীন পিক রিসোর্ট (Green Peak Resorts)

বান্দরবান শহর থেকে ৪ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত মেঘলা পর্যটন কমপ্লেক্স ছাড়িয়ে আরো আধা কিলোমিটার এগিয়ে গেলে চোখে পড়ে সবুজ প্রকৃতির কোলে গড়ে তোলা গ্রীন পিক রিসোর্ট টিকে। আধুনিক ও প্রয়োজনীয় সকল উপকরণে সুসজ্জিত শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কামরা, সুইমিংপুল, মাল্টিকুইজিন রেস্তোরাঁ এবং রিসোর্টের অথিতি সেবার মান গ্রীন পিক রিসোর্টকে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিকভাবে সমাদৃত করেছে।

চোখ জুড়ানো সবুজের কোলে সময় কাটানোর জন্য আদর্শ এই রিসোর্টে থাকতে হলে খরচ পড়বে ৬০০০ টাকা থেকে ১১৫০০ টাকা।

যোগাযোগ:
মেঘলা পর্যটন এলাকা (টিটিসির বিপরীতে), বান্দরবান
Dhaka: 02-8714395, 01758-554466, 01793-339222
Bandarban: 0361-62393, 01845-776633
ওয়েবসাইট: www.greenpeakresort.com
ইমেইল: green.peak.resorts@gmail.com
ফেসবুক পেইজ: www.facebook.com/GreenpeakResorts

৮। মিলনছড়ি হিলসাইড রিসোর্ট (Milonchori Hillside Resort)

বান্দরবান থেকে চিম্বুক যাওয়ার রাস্তা ধরে ৪ কিলোমিটার এগিয়ে গেলে মিলনছড়িতে হিলসাইড রিসোর্টের দেখা মিলবে। হিলসাইড রিসোর্টের নির্মানশৈলী এবং উপস্থাপনার নান্দনিকতা রিসোর্টিকে দিয়েছে বিশেষ স্বতন্ত্রতা। দিগন্ত জুড়ে সবুজের খেলা আর সাঙ্গু নদীর ছুটে চলা প্রকৃতিপ্রেমী পর্যটকদের মনকে সহজেই অপূর্ব এক প্রশান্তিতে ভড়িয়ে তোলে। এছাড়া বান্দরবানের জনপ্রিয় অথেন্টিক আদিবাসী খাবার খেতে চাইলে নিঃসন্দেহে ঢু মারতে পারেন এই রিসোর্টে।

হিলসাইড রিসোর্টের ডরমেটরিতে ৬ থেকে ১০ জনের রাত্রিযাপনে জনপ্রতি ভাড়া পড়বে ৯০০ টাকা। এছাড়া রিসোর্টের অন্যান্য এসি, নন-এসি রুমের ভাড়া ২৫০০ থেকে ৫৬০০ টাকা পর্যন্ত। তবে এখানে রুম বুকিং দিলে বান্দরবান শহর থেকে রিসোর্টে যাতায়াতের জন্য আপনাকে বাড়তি টেনশন করতে হবে না।

যোগাযোগ:
Dhaka Office : 01730-045054
Bandarban Office: 01730-045050
ওয়েবসাইট: www.hillsideresortbd.com
ফেসবুক পেইজ: www.facebook.com/milonchhori

৯। ফানুস রিসোর্ট (Fanush Resort)

বাংলাদেশের পাহাড়কন্যা খ্যাত নীলাচলের কাছে গড়ে উঠা ফানুস রিসোর্টটি বান্দরবান শহর থেকে ৪ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। সাজানোগুছানো ছিমছাম এই রিসোর্টি প্রথম দেখাতেই ভ্রমণপিয়াসীদের নজর কাড়ে।

Best Hotel and Resort of Bandarban Fanush Resort

পাহাড়ের কোলে প্রকৃতির সান্নিধ্যে ফানুস রিসোর্টের বিভিন্ন ক্যাটাগরির রুমে রাত্রিযাপন করতে ভাড়া বাবদ আপনাকে খরচ করতে হবে ১৭৫০ থেকে ৪০০০ টাকা পর্যন্ত।

যোগাযোগ:
ফোন: 01845-779999
ইমেইল: fanushresort.bandarban@gmail.com
ওয়েবসাইট: www.fanushresort.com

১০। হোটেল প্লাজা বান্দরবান (Hotel Plaza Bandarban)

নিরিবিলি পরিবেশে বান্দরবান শহরের মধ্যে থাকতে চাইলে হোটেল প্লাজা বান্দরবান হতে পারে আপনার জন্য সঠিক নির্বাচন। নিজস্ব রেষ্টুরেন্ট ব্যবস্থা সম্বলিত এই হোটেলে আছে ১০০ আসনের কনফারেন্স হল, বার বি কিউ এবং কমপ্লিমেন্টারি সকালের নাস্তার সুবিধা।
হোটেল প্লাজা বান্দরবানের বিভিন্ন ক্যাটাগরির রুমে ২৬৪৫ থেকে ৬৩২৫ টাকার বিনিময়ে থাকতে পারবেন। এছাড়াও এখানে ৫০০ টাকার বিনিময়ে এক্সট্রা বেড নিয়ার সুবিধা রয়েছে।

যোগাযোগ:
৭ নং ওয়ার্ড, আর্মি পাড়া, বান্দরবান।
Bandarban Office:
Tel  0361-63252
Mobile: 01678-060107, 01678-060273
Chittagong Office:
Tel: +88-031-2512563-65,
Mobile: 01678-060142, 01678-060124

Dhaka office
Telephone: 88-02-8837237/8837238
ইমেইল: info@plazabandarban.com
ওয়েবসাইট: www.plazabandarban.com
ফেসবুক পেইজ: www.facebook.com/hotelplazabandarban

১১। হিল প্যালেস রিসোর্ট (Hill Palace Resort)

বান্দরবান শহর থেকে চট্টগ্রাম-বান্দরবান হাইওয়ে ধরে ৪ কিলোমিটার এগিয়ে গেলে হিল প্যালেস রিসোর্টে পৌঁছাতে পারবেন। বান্দরবানের পাহাড়ি সৌন্দর্য্য এবং মেঘলা অপরুপ রুপ উপভোগের জন্য হিল প্যালেস রিসোর্টকে বেছে নিতে পারেন। আর রিসোর্টের মাল্টিকুজিনে উপভোগ করতে পারবেন আপনার পছন্দের খাবারের স্বাদ।

হিল প্যালেস রিসোর্টের এসি, নন-এসি বিভিন্ন ধরনের রুম ভাড়া নিতে ২০০০ থেকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত ব্যয় করতে হবে। ফোন: 01988-330000

১২। ভেনাস রিসোর্ট (Venus Resort)

বান্দরবানের মেঘলা পর্যটন কেন্দ্রের খুব কাছে পাহাড়ের চূড়ায় রয়েছে ভেনাস রিসোর্টের ৫টি আধুনিক কটেজ। অপরুপ প্রকৃতির মাঝে শিল্প ও সৃজনশীলতার নিদর্শন হিসাবে ছোট বড় বেশকিছু ভাস্কর্য দিয়ে সাজানো হয়েছে এই রিসোর্টকে। আর ভেনাস রিসোর্টের রেস্টুরেন্টের রয়েছে দেশি বিদেশি নানা পদের খাবার আয়োজন।

ভেনাস রিসোর্টে ডিলাক্স, সুপার ডিলাক্স, কাপল বেড, স্যুইট রুম, টুইন বেড(এসি কটেজ), কটেজ স্যুইট ইত্যাদি ক্যাটাগরি চালু আছে। এই সকল ক্যাটাগরির যেকোন একটি বুকিং দিতে ৪০০০ টাকা থেকে ১৫০০০ টাকা পর্যন্ত খরচ করতে হবে।

ফোন: 01552-808000
ওয়েবসাইট: www.venusresortbd.com

১৩। হোটেল হিল কুইন (Hotel Hill Queen)

বান্দরবান শহরে কেন্দ্রে অবস্থিত হোটেল হিল কুইন রয়েছে ভিআইপি সাপোর্ট এবং মেডিক্যাল সার্ভিস। এছাড়া কনফারেন্স রুম এবং ২৪ ঘন্টা বিদ্যুৎ সুবিধা সম্বলিত হোটেল হিল কুইনের রয়েছে নিজস্ব পরিবহণ ব্যবস্থা। বান্দরবানের আরেকটি জনপ্রিয় আবাসিক হোটেল হিলটন এবং হোটেল হিল কুইন একই মালিকানায় পরিচালিত।

হোটেল হিল কুইনে এক রাতের জন্য রুম ভাড়া নিতে ১৫০০ টাকা থেকে ৭০০০ টাকা পর্যন্ত খরচ করতে হবে।

যোগাযোগ:
ফোন: 01912-782398, 01838-970754
ফেইসবুক: www.facebook.com/HOTEL-HILL-QUEEN

১৪। হোটেল হিল ভিউ (Hotel Hill View)

বান্দরবান মূল শহরের প্রবেশ পথে বাস স্ট্যান্ডের পাশে বান্দরবানের সবচেয়ে বড় আবাসিক হোটেল হিল ভিউ গড়ে তোলা হয়েছে। হোটেল হিল ভিউ-এ রয়েছে ওয়াই ফাই সুবিধা, নিজস্ব পরিবহণ ব্যবস্থা, মেডিক্যাল সার্ভিস এবং কনফারেন্স রুম।

হোটেল হিল ভিউ-এ রাত্রিযাপন করতে চাইলে প্রতি রাতের জন্য রুম ভাড়া প্রদান করতে হবে রুম ভেদে ১৮০০ টাকা থেকে ৯০০০ টাকা পর্যন্ত।

যোগাযোগ:
বাসস্ট্যান্ড মেইন রোড, বান্দরবান
ফোন: 01828866000, 01790842777, 01818270082
ওয়েবসাইট: hotelhillviewbandarban.com
ফেসবুক পেইজ: www.facebook.com/HillViewBandarban

১৫। ফরেস্ট হিল রিসোর্ট (Forest Hill Resort)

মিলন ছড়ি রোডে অবস্থিত ফরেস্ট হিল রিসোর্টটি স্বযত্নে প্রকৃতির মায়া লালন করেছে চলেছে। বান্দরবান শহর থেকে মাত্র ৩ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থিত এই রিসোর্টের পরিবহণ ব্যবস্থা এছাড়াও আরো আছে রেস্টুরেন্ট, ফ্রি ওয়াই ফাই, মাউন্টেন ভিউ ব্যালকনি এবং রুমে কফি তৈরীর সরঞ্জাম।

ফরেস্ট হিল রিসোর্টের ডিলাক্স স্যুইট, ডিলাক্স কটেজ, ফ্যামিলি স্যুইট, সুপার ডিলাক্স কটেজের কোন একটিতে রাতে থাকতে হলে ৩০০০ টাকা থেকে ১০,০০০ টাকা ব্যয় করতে হবে।

যোগাযোগ:
চিম্বুক, বান্দরবান – থানচি রোড
ফোন: 01716-406123, 01865-246101, 01816-158412
ইমেইল: info@fresort.com

১৬। বন নিবাস হিল রিসোর্ট (Bono Nibas Hill Resort)

বান্দরবান-থানচি রোডের মিলন ছড়ির কাছে তৈরি করা হয়েছে অপূর্ব বন নিবাস হিল রিসোর্ট। বান্দরবান শহর থেকে বন নিবাস হিল রিসোর্টের দূরত্ব মাত্র ৩ কিলোমিটার।

Bandarban-Hotel-Bononibash

বন নিবাস হিল রিসোর্টের ব্যাম্বো, ধনেশ, জোনাকি, মাথুরা, মনপুরা, নিবাস, নৌকো ডিলাক্স এবং নৌকো নামের ক্যাটাগরি থেকে প্রতি রাতের জন্য রুম ভাড়া নিতে গুনতে হবে ৩০০০ টাকা থেকে ১২০০০ টাকা পর্যন্ত।

ফোন: 01725-159415, 01624-847411

১৭। হোটেল রিভার ভিউ (Hotel River View)

বান্দরবন শহরের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া সাঙ্গু নদীর তীর ঘেষে তৈরী করা হয়েছে হোটেল রিভার ভিউ। হোটেলে রুম ও ছাদ থেকে বান্দরবান শহর এবং সাঙ্গু নদীর সৌন্দর্য্য উপভোগ করা যায়।

হোটেল রিভার ভিউ-এর বিভিন্ন ধরন ও মানের রুমের যেকোন একটিতে বুকিং দিতে হলে ১৬০০ থেকে ৬০০০ টাকা পর্যন্ত খরচ করতে হবে।যোগাযোগ:
ফোন: 0361-62707, 01733-115585, 01731-112757, 01601-649199

১৮। পর্যটন মোটেল (Parjatan Motel)

মেঘলা পর্যটন কেন্দ্র থেকে পায়ে হাটা দূরত্বে পাহাড় এবং লেকের অপূর্ব ল্যান্ডস্কেপ ধারণ করে আছে বান্দরবনের এই পর্যটন মোটেলটি। বান্দরবান শহর থেকে এই মোটেলের দূরত্ব মাত্র ৪ কিলোমিটার। পর্যটন মোটেলের অন্যান্য সুযোগ সুবিধার মধ্যে রয়েছে ১০০ আসনের কনফারেন্স রুম, সকালের নাস্তা এবং অর্থের বিনিময়ে এক্সট্রা বেডের সুবিধা।

পর্যটন মোটেলে প্রতি রাতের জন্য রুম ভাড়া নিতে খরচ করতে হবে রুমের ধরণ অনুযায়ী ১৫০০ টাকা থেকে ৫৪০০ টাকা পর্যন্ত।

যোগাযোগ:
ফোন: 0361-62741, 0361-62742, 01991-139026, 01991139548
ওয়েবসাইট: www.parjatan.gov.bd

১৯। হোটেল গ্রীনল্যান্ড (Hotel Green Land)

বান্দরবান শহরের পোস্ট অফিসের কাছে হোটেল গ্রীনল্যান্ড অবস্থিত। যারা শহরের পরিবেশে এবং কম খরচে থাকতে চান তারা এই হোটেলটিকে অনায়াসেই বেছে নিতে পারেন। হোটেল গ্রীনল্যান্ডের অন্যান্য সুবিধার মধ্যে রয়েছে কনফারেন্স রুম, জেনারেটর সার্ভিস, চিকিৎসা সেবা, নিরাপত্তা এবং পরিবহণ ব্যবস্থা।

হোটেল গ্রীনল্যান্ডে রাত্রিযাপন করতে চাইলে সর্বনিন্ম ১৫০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৩০০০ টাকা খরচ করতে হবে।

ফোন: 01845-995575
ফেইসবুক: www.facebook.com/greenland.bandarban

২০। হোটেল ফোর স্টার (Hotel Four Star)

বান্দরবান বাজারে জনতা ব্যাংকের কাছে অবস্থিত হোটেল ফোর স্টার কম মূল্যে রাত্রিযাপনের জন্য বেশ প্রসিদ্ধ৷ ভ্রমণের খরচ সীমিত রাখতে মাঝারি মানের এই আবাসিক হোটেলটি বেছে নিতে পারেন। এই হোটেলে এক রাত থাকার জন্য রুম ভাড়া লাগবে ১০০০ টাকা থেকে ৩০০০ টাকা পর্যন্ত।

ফোন: 0361-62466, 01553-421089

বান্দরবান কোথায় কি দেখবেন এবং প্রয়োজনীয় সকল তথ্য জানতে বান্দরবান ভ্রমণ গাইড দেখুন।

ভ্রমণ সংক্রান্ত যে কোন তথ্য ও আপডেট জানতে ফলো করুন আমাদের ফেসবুক পেইজ এবং জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।