শিলং (Shillong) উত্তর-পূর্ব ভারতের মেঘালয় রাজ্যের রাজধানী। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৪৯০৮ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত শিলং-এ প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়। ফলে প্রকৃতি ও বর্ষা উপভোগ কিংবা শিলং-এর দর্শনীয় স্থান ভ্রমণ করতে এখানে প্রচুর পর্যটকের আগমন ঘটে।

শিলংয়ের দর্শনীয় স্থান

এশিয়ার সবচেয়ে পরিচ্ছন্ন গ্রাম মাওলিননং ভিলেজ ছাড়াও শিলংয়ে রয়েছে উমিয়াম লেক, এলিফ্যান্ট জলপ্রপাত, শিলং পার্ক বা শিলং ভিউপয়েন্ট, গল্ফ লিঙ্ক, ওয়ার্ড’স লেক, লাইটলুম ক্যানিয়ন, অল সেন্টস চার্চ, চেরাপুঞ্জি এবং কেনাকাটার জন্য প্রসিদ্ধ পুলিশ বাজার।

শিলং ভ্রমণের সময়

বর্ষাকাল এর সময় শিলং ভ্রমণের আদর্শ সময়। বর্ষাকালে শিলংয়ের পাহাড় গুলো সবুজের ভরে থাকে এবং ঝর্ণাগুলো পূর্ণতা পায়। তাই সবচেয়ে ভালো হবে জুন থেকে সেপ্টেম্বর এই সময়ে গেলে।

শিলং কিভাবে যাবেন

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা থেকে সরাসরি বিআরটিসি এবং শ্যামলী পরিবহণের বাসে চড়ে শিলং যেতে পারেন। প্রতি বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকা থেকে শিলংয়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। বিস্তারিত তথ্যের জন্য যোগাযোগ করতে পারেন: 01749-937545 (শ্যামলী পরিবহন কমলাপুর আন্তর্জাতিক টার্মিনাল)

অথবা ঢাকা থেকে বাস বা ট্রেনে করে সিলেট আসতে পারেন। সিলেট হতে বাস কিংবা সিএনজিতে চড়ে তামাবিল। এরপর ইমিগ্রেশন শেষ করে ডাউকি থেকে ট্যাক্সি নিয়ে সরাসরি শিলং চলে আসতে পারবেন।

যদি ভারতের অন্যান্য স্থান থেকে ট্রেনে করে আসতে চান তবে মনে রাখুন মেঘালয়ে কোনও রেলপথ নেই। তবুও রেলপথকে যদি বেছে নেন তবে সর্বোচ্চ গুয়াহাটি রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত ট্রেনে আসতে পারবেন। গুয়াহাটি থেকে শিলং যাওয়ার জন্য প্রচুর বাস এবং ক্যাব পাবেন। গৌহাটি থেকে গাড়িতে শিলং যেতে সাড়ে তিন ঘন্টার মতো সময় লাগে।

আর যারা আকাশপথে শিলং যেতে চান তাদের উমরোই বিমানবন্দর (অন্য নাম শিলং বিমানবন্দর) নামতে হবে। শিলং শহরের সবচেয়ে কাছে অবস্থিত এই বিমানবন্দরের দূরত্ব প্রায় ২৭ কিলোমিটার। কলকাতা এবং ভারতের বিভিন্ন স্থান থেকে বেশকিছু ফ্লাইট এই বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

শিলং এ কোথায় থাকবেন

শিলং শহরে বিভিন্ন মানের আবাসিক হোটেল রয়েছে। আপনি যদি বাজেট ট্রাভেলার হয়ে থাকেন তবে হোটেল নাইট ইন্, পাইন সুইটস হোটেল কিংবা শিলং ক্লাব গেস্টহাউসে সহজেই রাত্রিযাপন করতে পারবেন। আর মাঝারি মানের হোটেলের মধ্যে হোটেল সেন্টার পয়েন্ট এবং হোটেল আ্যলপাইন কন্টিনেন্ট্যাল বেশ জনপ্রিয়। শিলংয়ের একমাত্র ফোর স্টার মানের আবাসিক হোটেলের নাম ‘হোটেল পোলো টাওয়ারস’। সিজন অনুযায়ী ভাড়া কম বেশি হয়ে থাকে। আর হোটেল বুক করার আগে দামাদামি করে নেওয়াই ভালো।

১২০০ থেকে ৪০০০ রুপি ভাড়ায় থাকতে পারবেন

বউলভার্ড হোটেল (Boulevard Hotel) : +91-364-2229823, +91-364-2229044
দি ই সি হোটেল (The Eee Cee Hotel) : +91-364-2500188, 9206043888
হোটেল ইয়ালানা (Hotel Yalana) : +91-364-2211240, +91-364-2226059
হোটেল রেইনবো (Hotel Rainbow) : +91-364-2222534
হোটেল এম্বাসি (Hotel Embassy) : +91 364 222 3164

এছাড়াও শিলং পুলিশ বাজারে একটু খোঁজখবর করলে অসংখ্য আবাসিক হোটেলের মধ্য থেকে আপনার সাধ ও সাধ্যের মধ্যে থাকার হোটেল পেয়ে যাবেন। অনেক হোটেলে বাংলাদেশী বা বিদেশীদের রাখতে চায়না তাই আগেই খোঁজ নিয়ে যাওয়া উচিত কোন কোন হোটেলে আপনি থাকতে পারবেন।

কোথায় খাবেন

শিলংয়ে প্রচুর খাবারের হোটেল বা রেস্টুরেন্ট রয়েছে। এখানকার রেস্টুরেন্টে পর্ক (শুকরের মাংস), চিকেন এবং মাছ বেশী পাওয়া যায়। জনপ্রিয় রেস্টুরেন্টের মধ্যে রয়েছে জিঞ্জার রেস্টুরেন্ট, স্ক্যাই গ্রিল, কেনমোর, শিপ আ্যন্ড ডাইন রেস্টুরেন্ট, শেফ’স মাল্টি কিউজিন রেস্তোঁরা এবং সিসেম।

কেনাকাটা

শিলং এ কেনাকাটার জন্যে খুব বেশি অপশন নেই। তবে শিলং এ কেনাকাটা করতে চাইলে পুলিশ বাজারের বিকল্প নেই। এছাড়া চেরাপুঞ্জির যাওয়ার পথে সোহরাবাজার থেকেও কেনাকাটা করতে পারবেন। সোহরাবাজার কমলালেবুর মধু, দারচিনি আর চেরি ব্র্যান্ডির জন্য প্রসিদ্ধ।

শিলং ভ্রমণ টিপস

  • ডলার এক্সচেঞ্জ করতে চাইলে শ্যামলী কাউন্টার থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য জেনে নিতে পারবেন। এছাড়া শিলংয়ে পুলিশ বাজারের বেশকিছু মানি এক্সচেঞ্জের দোকান আছে। তবে শিলং যাবার আগেই আপনার যেহেতু রুপির প্রয়োজন হবে তাই উচিৎ হবে নিয়ম মেনে সাথে কিছু টাকা নিয়ে যাওয়া এবং ডাউকি বাজারে রুপিতে এক্সচেঞ্জ করে নেওয়া।
  • শিলং ভ্রমণে সবচেয়ে ভালো হবে ৪ জন অথবা ৬-১০ জনের গ্রুপ হলে। এতে করে গাড়ি সহজে শেয়ার করা যায়। ৪ জনের গ্রুপ হলে টেক্সি রিসার্ভ করতে পারবেন এবং তার বেশি হলে ম্যাক্সি রিসার্ভ করতে পারবেন। গ্রুপ সংখ্যা ঠিক মত হলে খরচ কম হবে।
  • রবিবার শিলং এর সবকিছু বন্ধ থাকে। শপিং মল থেকে শুরু করে সব ধরণের দোকান। তাই কেনাকাটার জন্য রবিবার ছাড়া প্ল্যান করুন। আর ভ্রমণ পরিকল্পনায় এই বিষয় অবশ্যই মাথায় রাখবেন।
  • শিলং এর সব দোকান সকাল ১০ টায় খুলে এবং রাত ৯ টার ভিতর সব বন্ধ হয়ে যায়। রাত ৯ টার পর কোন কিছু খোলা পাবেন না, এমনকি খাবার হোটেল ও না। তাই খাওয়া দাওয়া সহ অন্য সব কাজ আগেই শেষ করে ফেলুন।

প্রয়োজনীয় ফোন নাম্বার

শেয়ার করুন সবার সাথে

ভ্রমণ গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করছে আপনাদের কাছে হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপন করতে। যদি কোন তথ্যগত ভুল কিংবা স্থান সম্পর্কে আপনার কোন পরামর্শ থাকে মন্তব্যের ঘরে জানান অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ পাতায় যোগাযোগ করুন।
দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।
সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।